এমপি হত্যা ভালো লক্ষ্মণ নয়: এরশাদ

রংপুর:: গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত হওয়ার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, দেশে এমপি হত্যা ভালো লক্ষ্মণ নয়।
তিনি আরও বলেন, ‘দুর্বৃত্তরা এমপিকে (লিটন) তার বাড়িতে ঢুকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা করেছে। কোনোভাবেই দুর্বৃত্তদের ছাড় দেওয়া যাবে না। তাদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দিবে হবে।’

তিন দিনের সফরে সোমবার ঢাকা থেকে রংপুরে এসে নিজ বাসভবন পল্লীনিবাসে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন জাপা চেয়ারম্যান।

গত ৩১ ডিসেম্বর গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার সর্বানন্দ ইউনিয়নের শাহাবাজ গ্রামের বাড়িতে ঢুকে এমপি লিটনকে গুলি করে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি আহসান হাবিব মাসুদ ও জামায়াতে ইসলামীর ৬ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এরশাদ বলেন, ‘বিএনপির সাংগঠনিক অবস্থা করুণ। বিএনপির অস্তিত্ব এখন টিকিয়ে রাখা দায় হয়ে পড়েছে। জাতীয় পার্টি আগের চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী হয়েছে, জাতীয় পার্টি সুসংগঠিত হয়েছে। আগামীতে সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে জাতীয় পার্টি আবার ক্ষমতায় আসবে। আমরা সে লক্ষ্য নিয়েই কাজ করে যাচ্ছি।’

সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ আরও বলেন, ‘জাতীয় পার্টির ৯ বছরের শাসনামলে দেশের মানুষ শান্তিতে ছিল। এজন্য দেশের মানুষ আবারও জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় দেখতে চায়।’

জাপা চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমাকে অন্যায়ভাবে মামলায় ফাঁসানোসহ শাস্তি দেয়া হয়েছে। যারা আমাকে শাস্তি দিয়েছে তাদের রাজনৈতিক অবস্থা আজ ভালো নয়। আমাকে বাঁচিয়েছে রংপুরবাসী। তাই রংপুরবাসীর ঋণ আমি কোনোদিনও শোধ করতে পারব না।’

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান, সাধারণ সম্পাদক এসএম ইয়াছির, জেলা জাপার সভঅপতি মোফাজ্জল হোসেন মাস্টার।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment