সেই অভিশপ্ত রাতে টাইটানিক-এর ডিনার মেন্যুতে কী ছিল?

নিউজ ডেস্কঃ ১৫ এপ্রিল, ১৯১২। রাতে ডুবে গিয়েছিল টাইটানিক। সেই দিনটায় কী খেয়েছিলেন যাত্রীরা? শুরু করা যাক তৃতীয় শ্রেণি দিয়ে।

প্রাতঃরাশ- ওটমিল পরিজ, হেরিং, আলু সিদ্ধ, ডিম সিদ্ধ, হ্যাম, পাঁউরুটি, মাখন, চা এবং কফি।

নৈশভোজ- খিচুড়ির মতো একটা কিছু, সঙ্গে বিস্কিট এবং চিজ। দ্বিতীয় শ্রেণির খাবার তালিকা ছিল এইরকম।
প্রাতঃরাশ- ফল, রোল্‌ড ওট্‌স, টাটকা মাছ, ষাঁড়ের মেটে, বেকন, গ্রিল্‌ড সসেজ, ম্যাশ্‌ড পোট্যাটোজ, ডিম ভাজা, ফ্রেঞ্চ ফ্রাই, পাঁউরুটি, কেক, মেপ্‌ল সিরাপ, মার্মালেড, কফি, চা।

নৈশভোজ- বিভিন্ন ধরনের স্টার্টার, বেক্‌ড হ্যাডক, চিকেন কারি, ভাত, ভেড়ার মাংস, রোস্টেড টার্কি, আইসক্রিম, টাটকা ফল, চিজ, কফি।

এবং সবশেষে প্রথম শ্রেণি

প্রাতঃরাশ- বেক্‌ড আপেল, টাটকা ফল, সেই সময়ে প্রাপ্ত সবথেকে দামী ওট্‌স, মুড়ি, বিভিন্ন ধরনের বেক্‌ড এবং গ্রিল্‌ড মাছ, বিভিন্ন ধরনের ওমলেট, মাংসের একাধিক পদ, নানা ধরনের কেক। সঙ্গে চা এবং কফি।

নৈশভোজ- বলা হয়, এমন মেনু নাকি সচরাচর হয় না। এত ধরনের স্যুপ হয়েছিল যে, তার কাউন্টারই ছিল বিশাল। সঙ্গে চিকেন, ল্যাম্ব, বিফ, হাঁসের মাংস, চকোলেট, সিলেরির মতো এত পদ ছিল যে, কোনটা ছেড়ে কোনটা খাবেন, ঠিক করা ছিল দায়।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment