একক স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শনী বাংলা চলচ্চিত্রের মন্দা কাটিয়ে ওঠার সম্পূরক প্রয়াস

বাংলা চলচ্চিত্রের মন্দা কাটিয়ে গৌরবোজ্জ্বল নতুন অধ্যায় সূচনা করতে চলচ্চিত্র নির্মাণ সংশ্লিষ্ট কলাকুশলী-শিল্পী বা চলচ্চিত্র বোদ্ধা ও কর্মিদের যুগোপযোগী সমন্বিত উদ্যোগ শুধু অত্যন্ত জরুরি- এমন নয়; বরং এর কোন বিকল্প নেই। কারণ এক্ষেত্রে বিদেশি সাহায্য-সহযোগিতা, বুদ্ধি-পরামর্শ বা অভিজ্ঞাতা বিনিময় কেবলই সহায়কমাত্র বলেই মনে করেন তরুণ চলচ্চিত্র নির্মাতা প্রাচ্য পলাশ।

"দ্য সানসেট" এর একটি দৃশ্য
                        “দ্য সানসেট” এর একটি দৃশ্য

 

প্রাচ্য পলাশ নির্মিত তিনটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নিয়ে শিক্ষার্থীদের জন্য উন্মুক্ত পৃথক তিনটি প্রদর্শনী গত ২৪ জানুয়ারি হরিমোহন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে, গত ৩০ জানুয়ারি গ্রীণ ভিউ উচ্চ বিদ্যালয়ে ও গত ৩১ জানুয়ারি নবাবগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইউটিউব ভিত্তিক চ্যানেল প্রাকৃত টিভি (PRAKRITA TV) আয়োজিত ঘন্টাদীর্ঘ এ প্রদর্শনীতে সচেতনতামূলক স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র দ্য সানসেট, এ্যান আনফিনিসিড ড্রীম’, ‘নিরবধি ‘দ্য হার্ট ব্রেকার’ দেখানো হয়।

এ প্রসঙ্গে চলচ্চিত্র তিনটির নির্মাতা প্রাচ্য পলাশ জানান, স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের পৃথক তিন প্রদর্শনীতে প্রায় এক হাজার শিক্ষার্থী অংশগ্রহন করে, যাদের কেউ সিনেমা হল বা প্রেক্ষাগৃহ কি তা জানে না। মিলনায়তনে বসে বড় পর্দায় চলচ্চিত্র দেখার অভিজ্ঞতা তাদের কাছে এটাই প্রথম, যা ছিল তাদের কাছে দারুণ উপভোগ্য ও একরকম পরম পাওয়া। প্রত্যেক প্রদর্শনীতে অংশগ্রহনকারী শিক্ষার্থীরা বারবার এমন প্রদর্শনী আয়োজনের দাবিও জানিয়েছে। আর তাই এই প্রদর্শনীকে বাংলা চলচ্চিত্রের মন্দা কাটিয়ে ওঠার সম্পূরক প্রচেষ্টা হিসাবেই দেখছেন নির্মাতা প্রাচ্য পলাশ।

কিন্তু স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র আর উন্মুক্ত প্রদর্শনী আয়োজন করে তো চলচ্চিত্রের সুদিন ফিরিয়ে আনা সম্ভব নয়। এক্ষেত্রে আধুনিক-রুচিশীল দর্শকদের জন্য উপভোগ্য বহু নতুন বাংলা চলচ্চিত্রের অনেক বড় একটা ধাক্কা দরকার। তবে যতোদিন এমন ধাক্কা চিত্রজগতে না আসে ততোদিন স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের এমন প্রদর্শনীর গুরুত্ব অপরিসীম বলেই মনে করেন নির্মাতা প্রাচ্য পলাশ।
চাঁপাইনবাবগঞ্জের রাজমহল প্রেক্ষাগৃহের মালিক রাজিব জানায়, একসময় এ জেলায় ২০টির অধিক সিনেমা হল ছিল। বর্তমানে জেলা শহরে রাজমহল ও শিবগঞ্জে পদ্মা ছাড়া অন্য হলগুলো বন্ধ হয়ে গেছে। এ দু’টির অবস্থাও বিশেষ ভালো নয়। গত ৫ বছরের মধ্যে শুধুমাত্র ‘বাদসা, দ্য ডন’ চলচ্চিত্রটিতে রেকর্ড পরিমাণ ব্যবসা হয়েছে। চলচ্চিত্রের সুদিনের অপেক্ষায় দিন গুনছেন বলে তিনি যুক্ত করেন।

নির্মাতা প্রাচ্য পলাশের প্রদর্শনীতে দেখানো চলচ্চিত্র তিনটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনয় শিল্পী রোকেয়া প্রাচী, লুৎফর রহমান জর্জ, অবিদ রেহান, লাক্স তারকা স্বর্ণা, নিয়ামুল করিম, নূর মোহাম্মদ রাজ্য, রোমা, চন্দ্র বর্মন, রাজ পারভেজ, প্রীতি, আপন, রাজন, জ.ই জালিম, সাঈদ হোসেন লাভলুসহ আরো অনেকে।

উল্লেখ্য, চমক নিয়ে বড় পর্দায় হাজির হতে যাচ্ছেন তরুণ চলচ্চিত্র নির্মাতা প্রাচ্য পলাশ। পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণকে ঘিরে ইতোমধ্যেই প্রাথমিক প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন এ নির্মাতা। আগামী মার্চ ও এপ্রিল জুড়ে চলবে তার নির্মিতব্য এ চলচ্চিত্রের শ্যুটিং। ২০১৪ সালে নাটক নির্মাণের মাধ্যমে প্রাচ্য পলাশ নির্মাতা হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেন। এরপর তিনি বেশ কিছু স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র, প্রামাণ্য চলচ্চিত্র, টিভিসি, টেলিফিল্ম প্রভৃতি নির্মাণ করেন। ২০১৬ সালের জুলাই মাসে ভিন্নমাত্রার ইউটিউব চ্যানেল চজঅকজওঞঅ ঞঠ চালু করে চলচ্চিত্র অঙ্গণে আলোচনায় আসেন।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment