শিবগঞ্জের প্রশাসন বাল্য বিয়ে থেকে উদ্ধার করলো ৬জন তরনীকে । সহযোগিদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা

0

রিপন আলি রকি :

শিবগঞ্জে উপজেলা প্রশাসন ৬ জন তরনীকে বাল্য বিয়ের হাত থেকে উদ্ধার করেছে এবং ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে বর ওবাল্য বিয়ের ১০ জন সহযোগিদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো : শফিকুল ইসলাম জানান গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায় শুক্রবার দুপুরে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ৬টি বাল্য অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।এ ছয়টি বাল্য বিয়ে ভন্ডল করতে শিবগঞ্জ থানা পুলিশের এস আই শহীদ, এস আই ওসমান ও এস আই রবিউলের নেতৃত্বে পুলিশের দুটি টিম ঘটনাস্থলে পাঠিয়ে বাল্য বিয়ের হাত থেকে ঐ ছয় জন তরনীকে উদ্ধার করা হয়।

উদ্ধার হওয়া তরনীরা হলো ঘোড়াপাখিয়া ইউনিয়নের শিউলী খাতুন (১৩) নয়ালাভাঙ্গা ইউনিয়নের সরকারের মোড় গ্রামের রিয়া খাতুন (১৩) ও একই ইউনিয়নের হাজী পাড়া গ্রামের মোসলেমা থাতুন (১৪) দূর্লভপুর ইউনিয়নের বালূটুঙ্গী গ্রামের এসএসসি পরীক্ষার্থি জেলী খাতুন (১৫) ও একই গ্রামের আয়েশা খাতুন ও উজিরপুর ইউনিয়নের ফাতেমা খাতুন (১৪)। শুক্রবার বিকালে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে উদ্ধারকৃত ছয় জন তরুনীকে মুচলেকার মাধ্যমে ছেড়ে দেয়া হয়। এবংবিয়ে সহযোগিতাকারী বর কনের অভিভাবকগণ কে নিম্নে ৭ দিন ও উর্দ্ধে এক মাস করে সাজা দেয়া হয়েছে।সাজাপ্রাপ্তরা হলে হলো উপজেলার ঘোড়াপাখিয়া ইউনিয়নের কনের ভগ্নিপতি শরীফ উদ্দিন, কনের ভাবী উল্লাশী বেগম,নয়ালাভাঙ্গা ইউনিয়নের সরকারের মোড় গ্রামের কনের পিতা হাবিব আলি, একই ইউনিয়নের হাজীপাড়া গ্রামের বর মোত্তালেব হোসেন,কনের মাতা মোসা : নাসরিণ বেগম, দূর্লভপুর ইউনিয়নের বালূটুঙ্গী গ্রামের কনের মাতা আরিফা বেগম, চাচাতো ভাই মিলন,একই গ্রামের কনের চাচাতো ভাই রোজবুল হক। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো : শফিকুল ইসলাম জানান, শিবগঞ্জ উপজেলায় বেআইনিভাবে বাল্য বিয়ে বন্ধ করতে অভিযান অব্যহত থাকবে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ