‘প্রতিটি পত্রিকা অফিসে নিজস্ব নীতিমালা থাকতে হবে’

0

সরাকরিভাবে নীতিমালা হচ্ছে। এর বাইরে প্রতিটি পত্রিকা অফিসে নিজস্ব নীতিমালা থাকতে হবে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।

তিনি বলেন, বেশিরভাগ পত্রিকা অফিসে সাংবাদিকদেরকে কোন নীতি মেনে চাকরিতে যোগদান করানো হচ্ছে, কোন স্কেলে বেতন দেওয়া হচ্ছে, কোন ক্ষমতাবলে ও কি কারণে চাকরিচ্যুত করা হচ্ছে তার সুনির্দিষ্ট এবং স্পষ্ট নীতিমালা থাকতে হবে।
রবিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে ‘নারী পুরুষের বৈষম্যহীন গণমাধ্যম চাই’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, ‘সাংবাদিক ইউনিয়নগুলোর উচিত কোন কোন অফিস এসব নীতিমালা অনুসরণ করছে তা দেখভাল করা। প্রতিবছরই সেটা দেখভাল করে তথ্য মন্ত্রণালয়কে রিপোর্ট করা। এসব নিয়ম পালন ছাড়া কোনও ক্ষেত্রেই দেশে টেকশই উন্নয়ন হবে না।’
গণমাধ্যমে নারীর কাজের সুযোগ তৈরি হচ্ছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘আমি দায়িত্ব নেওয়া পরে অনেক কাজ করেছি। সরকারি-বেসরকারি মিলিয়ে ১৯ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগ রয়েছে। সেখানে প্রচুর মেয়েরা লেখাপড়া করছে। আবার চলচ্চিত্র, টেলিভিশন ইনিস্টিটিউট হয়েছে, দুবছর ধরে সনদ দিচ্ছে। আমি সেখানে নির্দেশও দিয়েছি শিক্ষার্থী ভর্তির বিষয়ে যেন জেন্ডার সমতা থাকে। সরকারিভাবেও নারী-পুরুষ সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।’
প্রতিষ্ঠানের মালিকদে উদ্দেশে তথ্যমন্ত্রী বলেন, নারী ও পুরুষ সাংবাদিকদের মধ্যে বৈষম্য দূর করতে হবে। আর তা দূর করতে হলে সবার আগে এগিয়ে আসতে হবে সাংবাদিকদেরই। এছাড়া সংবাদ পত্রিকার মালিকদেরও অনেক বড় ভূমিকা রয়েছে। আপনারা নিজস্ব নীতিমাল তৈরি করুন, যৌন হয়রানি বিষয়ক কমিটি করুন, নারীর যাতায়াতের নিরাপত্তার জন্য গাড়ির ব্যবস্থা করুন।
ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্তের সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন নারী সাংবাদিক কেন্দ্রের সভাপতি নাসিমুন আরা হক মিনু, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক গীতি আরা নাসরিন, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারন সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন প্রমুখ।
  • আরো সংবাদ
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ