পাপকে ঘৃনা করো পাপিকে নয়” মাদককে ঘৃনা করো মাদকসেবীকে নয়: আরএমপি কমিশনার

রাজশাহী ব্যুরো: “পাপকে ঘৃনা করো পাপিকে নয়” মাদককে ঘৃনা করো মাদকসেবীকে নয়। মাদক ব্যবসা ও মাদকসেবীদের পুনর্বাসন করে রাজশাহী থেকে সকল প্রকার মাদকের ব্যবহার বন্ধ করার অভিপ্রায়ে রাজশাহী পুলিশ বিভাগ যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহন করেছেন। আর এই পদক্ষেপের মুল পরিকল্পনাকারী রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার শফিকুল ইসলাম-বিপিএম।
মাদকসেবীরা সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান হলেও অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের পরিচয় দিতে লজ্জাবোধ করেন বলে মাদকাসক্তদের চিকিৎসা ও পূনর্বাসনে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের সহায়তা শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রথান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন। এভাবেই তারা ধীরে ধীরে পরিচয়হীন হয়ে পড়ে। তিনি বলেন রাজশাহী মাদকাসক্তদের পূনর্বাসন ও মাদক সেবন এবং বিক্রি বন্ধে একটি রোল মডেল হিসেবে দাঁড়িয়ে গেছে। আর এই মডেল অনুযায়ী সারা দেশে এর কার্যক্রম শুরু হয়েছে বলে তিনি ব্কতৃতায় উল্লেখ করেন।
এই মডেলকে ধরে রাখার জন্য তিনি রাজশাহীবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন। এ পর্যন্ত ৩০০ মাদকসেবী ও ব্যবসায়ীদের মাদক সেবন ও ব্যবসা বন্ধ করে পূনর্বাসন করা হয়েছে বলে তিনি বক্তব্যে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন তাদের সংসার পরিচালনার জন্য ভ্যানগাড়ী, সেলাই মেশিন, ছোট দোকান ও নগদ অর্থ প্রদান করা করা হয়েছে। সেইসাথে রাজশাহী জজ কোর্টের এ্যাডভোকেটদের সঙ্গে আলোচনা করে তাদের মামলা বিনামূল্যে পরিচালনা করার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন।এছাড়াও তিনি অনেক মাদকসেবীকে চিকিৎসা সেবা গ্রহনের জন্য অর্থ সহযোগিতা প্রদান অব্যাহত রেখেছেন।
তিনি বলেন মাদকসেবী ও বিক্রেতারা সুস্থ ও স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার পর সরকারীভাবে প্রশিক্ষণ প্রদানের ব্যবস্থা করার প্রক্রিয়া আরম্ভ করেছেন । যেখানেই জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ ও মাদক সেখানেই প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য আইন শৃংখলা বাহিনীসহ জনগণের প্রতি তিনি আহবান জানান।একজন মাদকসেবী একটি পরিবারের বোঝা উল্লেখ করে তিনি সন্তানদের দিকে নজর রাখার জন্য অভিভাবকদের পরামর্শ প্রদান করেন।
আপস মাদকাসক্ত পূনর্বাসন কেন্দ্রে পুলিশ বিভাগের খরচে পাঁচজনসহ আরও অনেক মাদকসেবী চিকিৎসারত রয়েছে। তারা বর্তমানে ভাল আছেন। তারা বলেন সেখানে ঔষধের থেকে কাউন্সিলিং ও মানসিক চিকিৎসা বেশী করা হয়। আর এই ধরনের চিকিৎসার জন্য তারা দ্রুত সুস্থ জীবনে ফিরে আসতে পারছেন ।
বৃহস্পতিবার বিকেলে লক্ষীপুর ভাটাপাড়া মিঠুর মোড় এলাকার আপস অফিস প্রঙ্গনে আসক্ত পূণর্বাসন কেন্দ্রের আয়োজনে এই মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতি করেন আপস এর নির্বাহী পরিচালক আবুল বাসার। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার শফিকুল ইসলাম বিপিএম। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আরএমপি (সদর) অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার সিরিন আক্তার জাহান, আরএমপি মুখপাত্র ইফতেখায়ের আলম, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আিধদপ্তরের উপ-পরিচালক লুৎফর রহমান, রাজপাড়া থানা অফিসার্স ইনচার্জ আমানসহ শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও রিকভারী মাদকসেবীবৃন্দ।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment