হস্তমৈথুন করার ক্ষতি কি? জেনে নিন কিভাবে এর থেকে মুক্তি পাবেন

0

সামপ্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে যে, শতকরা ৯৫ জন পুরুষ এবং শতকরা ৮৯ জন নারী হস্তমৈথুন বা স্বমেহনে অভ্যস্ত। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় নারী এবং পুরুষ প্রথম যৌনমিলনের স্বাদ গ্রহণ করে স্বমেহনের মাধ্যমে। নিয়মিত যৌনসঙ্গীর অভাবে বহু পুরুষ এবং বহু নারী স্বমেহনে অভ্যস্ত হয়ে পড়ে। এটি খুবই সাধারণ যৌনতার আচরণ অনেক পুরুষ ও নারী ছোটবেলাতেই স্বমেহনে অভ্যস্ত হয়ে পড়ে। হয়তো তাদের মনের অজান্তেই তারা এই আনন্দটি উপভোগ করতে অভ্যস্ত হয়ে পড়ে।

পুরুষের হস্তমৈথুনের সাধারন পদ্ধতি হল – লিঙ্গ হাতের মুঠোয় নিয়ে সামনে ও পিছনে সজোরে সন্চালন করা । ফলে হাতের আঙ্গুলের সাহায্যে লিঙ্গের মুন্ডে চাপ কমে ও বাড়ে ।

সেই সঙ্গে লিঙ্গকে মাঝখানে রেখে উরূদুটি সামনে ও পিছনে রগরানো । কখনো বালিশে, গোটানো বেডশিটে, তোশকে বা এ জাতীয় কোন বস্তুতে, তীব্র জলের ধারা দিয়েও হস্তমৈথুন করে থাকে অনেকেই ।

হস্তমৈথুন শুধু কম বয়ষ্কদের জন্য নয়, এটি বিবাহ-পূর্ব জীবন পর্যন্ত সকল অবিবাহিত নারী পুরুষের জন্য একটি স্বাভাবিক যৌনাচার। পরিসংখ্যানে দেখা যায়, ৭০ থেকে ৯০ ভাগ নারী পুরুষ হস্তমৈথুন করে থকেন।

হস্তমৈথুন এমন একটি বদঅভ্যাস যা একবার কাউকে পেয়ে বসলে ত্যাগ করা খুবই কষ্টকর হয়ে দাড়ায়। শুধু তাই না এই বদঅভ্যাসটিই এক সময় অনেকের যৌন জীবন বিপর্যস্ত করে তুলে। অতিরিক্ত হস্তমৈথুনের ফলে লিঙ্গ ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে এবং যৌন দুর্বলতাও সৃষ্টি হয়। যারা এই বদঅভ্যাসে জড়িয়ে পড়েছেন এবং ছাড়তে চেষ্টা করতেছেন কিন্তু পারতেছে না এই পোষ্ট টি আশা করি আপনাকে কিছুটা হলেও উপকৃত করবে।

প্রথমে জেনে নেয় অতিরিক্ত হস্তমৈথুনের ক্ষতি কি কিঃ

অনেকেই অতিরিক্ত হস্তমৈথুন করেন যার ফলে শক্তি হ্রাস সহ নানাবিদ শারীরিক সমস্যায় ভোগেন। তার মধ্যে উল্ল্যেখযোগ্য বিষয় গুলো হলোঃ

১. শারীরিক ব্যথা এবং মাথা ঘোরা।
২. যৌন ক্রিয়ার সাথে জড়িত স্নায়ুতন্ত্র দুর্বল হওয়া অথবা ঠিক মত কাজ না করার পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়া। স্নায়ুতন্ত্র দুর্বল হয়ে যাওয়া থেকে যৌন দুর্বলতা সৃষ্টি হয়। যৌন দুর্বলতা মানে অকাল বীর্যপাত। যার কারণে বিবাহ পরবর্তী দাম্পত্য জীবনে আপনি অসুখী হতে পারেন এবং আপনার স্ত্রী অতৃপ্ত থেকে যেতে পারে।
৩. শরীরের অন্যান্য অঙ্গ যেমন: হজম প্রক্রিয়া এবং প্রসাব প্রক্রিয়ায় সমস্যা সৃষ্টি করে। দ্রুত বীর্যস্থলনের প্রধান কারণ অতিরিক্ত হস্তমৈথুন
৪. হস্তমৈথুনের ফলে অনেকেই কানে কম শুনতে পারেন এবং চোঁখে ঘোলা দেখতে পারেন।

আপনি কিভাবে এই বদঅভ্যাস পরিহার করবেন???

১. আপনি কোন কোন সময় হস্তমৈথুন বেশি করেন, সেই সময়গুলো চিহ্নিত করুন। বাথরুম বা ঘুমাতে যাওয়ার আগে যদি উত্তেজিত থাকেন, বা হঠাত কোন সময়ে যদি এমন ইচ্ছে হয়, তাহলে সাথে সাথে কোন শারীরিক পরিশ্রমের কাজে লাগে যান। যেমন বুকডন বা অন্য কোন ব্যায়াম করতে পারেন। যতক্ষণ না শরীর ক্লান্ত হয়ে যায়, অর্থাৎ হস্তমৈথুন করার মত আর শক্তি না থাকে, ততক্ষণ পর্যন্ত সেই কাজ বা ব্যায়াম করুন। গোসল করার সময় এমন ইচ্ছে জাগলে শুধু ঠাণ্ডা পানি ব্যবহার করুন এবং দ্রুত গোসল ছেড়ে বাথরুম থেকে বের হয়ে আসুন।

২. মেয়েদের দিকে কুনজরে তাকাবেন না। তাদের ব্যাপারে বা দেখলে মন আর দৃষ্টি পবিত্র করে তাকাবেন। নিজের মা বা বোন মনে করবেন। এব্যাপারে ইসলামেরও কড়া নির্দেশ আছে আর এর জন্য পরকালে কঠিন শাস্তিও নির্ধারণ করা আছে। মহান আল্লাহ আগে পুরুষদের কে পর্দা করার নির্দেশ দিয়েছেন। পুরুষের পর্দা মানে দৃষ্টি সংযত রাখা।
৩.  যতটা সম্ভব নিজেকে কোনো ভালো  কাজে ব্যস্ত রাখুন।

৪. ধৈর্য ধরতে হবে। একদিনেই  নেশা থেকে মুক্তি পাবেন, এমন হবে না। একাগ্রতা থাকলে ধীরে ধীরে যে কোন নেশা থেকেই বের হয়ে আসা যায়। মাঝে মাঝে ভুল হয়ে যাবে। তখন হতাশ হয়ে সব ছেড়ে দেবেন না। চেষ্টা করে যান। চেষ্টা করতেই থাকুন। ইনশাআল্লাহ  আপনি সফল হবেন ই।
৫. পর্ণ ভিডিও দেখা এবং চটি গল্প পড়া থেকে বিরত থাকুন। পর্ণ ভিডিও দেখা ও চটি গল্প পড়ার কারণে স্নায়ুতন্ত্র দুর্বল হয়ে । আপনার কম্পিউটারে অথবা মোবাইলের মেমোরিতে পর্ণ ভিডিও থাকলে সে গুলো মুছে ফেলুন। এবং ফেসবুক ব্যবহার করেন থাকেন এবং ফেসবুকে চটি জাতীয় পেইজে লাইক দিয়ে থাকেন তাহলে সেগুলো আজই আনলাইক করে ফেলুন। এবং এই পেইজের পোস্ট যাতে আপনার হোম পেইজে না আসে সে জন্য ঐ পেইজ টি ব্লক করে দিন। তার সাথে আপনার ওয়েব ব্রাউজারে যদি পর্ণ বা চটি সাইট বুকমার্ক করা থাকে তাহলে এই ধরণের বুকমার্ক গুলো ব্রাউজার থেকে মুছে দিন।

৬. যেসব ব্যক্তিরা বাজে বিষয় নিয়ে বা মেয়েদের নিয়ে বা পর্ণ ভিডিও বা চটি নিয়ে বেশি আলোচনা করে, তাদেরকে এড়িয়ে চলুন।

৭. হস্তমৈথুনে চরম ভাবে আসক্ত হলে কখনোই একা থাকবেন না, ঘরে সময় কম কাটাবেন, বাইরে বেশি সময় কাটাবেন। জগিং করতে পারেন, সাইকেল নিয়ে ঘুরে আসতে পারেন। ছাত্র হলে ক্লাসমেটদের সাথে একসাথে পড়াশুনা করতে পারেন। লাইব্রেরি বা কফি শপে গিয়ে সময় কাটাতে পারেন। ভালো গল্পের বই পড়তে পারেন অথবা আমাদের সাইট থেকেও আপনি ভালো ভালো গল্প পড়তে পারেন।

৮. সন্ধ্যার সময়ই ঘুমিয়ে পড়বেন না। হাতে কোনো কাজ না থাকলে মজাদার মুভি দেখুন বা বই পড়ুন। অথবা মজাদার বা একশন ভিডিও গেম খেলতে পারেন। এটাও হস্তমৈথুনের কথা ভুলিয়ে দেবে। আপনি মুসলিম হয়ে থাকেন তা হলে এই সময়টুকুতে ইসলামিক বই পড়তে পারেন অথবা যিকির আযকার ও নবী করীম (সাঃ) এর দরূদ পাঠ করতে পারেন।

৯. একা থেকে অথবা বাসায় বসে থেকে যদি পুরুষাঙ্গ শক্ত হয়ে যায় তাহলে বাথরুমে গিয়ে প্রসাব করে আসুন। তাহলে উত্তেজনা ভাবটা কেটে যাবে। এবং  ঘরে সময় কম কাটাবেন, বাইরে বেশি সময় কাটাবেন। জগিং করতে পারেন, সাইকেল নিয়ে ঘুরে আসতে পারেন। খেলাধুলা করতে পারেন। ছাত্র হলে ক্লাসমেটদের সাথে একসাথে বসে পড়াশুনা করতে পারেন। লাইব্রেরি বা কফি শপে গিয়ে সময় কাটাতে পারেন।

১০. সেক্সুয়াল ব্যাপারগুলো একেবারেই এড়িয়ে চলবেন। এধরনের কোন শব্দ বা মন্তব্য শুনবেন না এবং আলোচনাও করবেন না।

১১. গোসল করতে গিয়ে যদি হস্তমৈথুনের অভ্যাস থাকে তাহলে যথা সম্ভব দ্রুত গোসল সেরে বাথরুম থেকে বেরিয়ে যান এবং গোসল করতে গিয়ে লিঙ্গ নাড়াচাড়া করবেন না।

১২. যখনি মনে যৌন চিন্তাধারা উদয় হবে, তখনই অন্য কিছু নিয়ে চিন্তা করবেন।

১৩. ভালো বন্ধুবান্ধব ও পরিবারের সবার সাথে বেশি সময় কাটান।

১৪. ধ্যান বা মেডিটেশন করতে পারেন। যোগ ব্যায়াম করতে পারেন।

১৫. নিজের পরিবারের কথা চিন্তা করবেন, আপনার সাথে যারা আছে তাদের কথা ভাববেন।

১৬. ফোনসেক্স এড়িয়ে চলুন

১৭. অপরের সাহায্য নিতে ভুল করবেন না। রাতের বেলা হস্তমৈথুন করলে কারো সাথে রুম শেয়ার করুন। বা দরজা জানালা খোলা রেখে আলো জ্বালিয়ে ঘুমান। যখন দেখবেন যে সব চেষ্টা করেও একা একা সফল হতে পারছেন না, তখন বন্ধুবান্ধব, পরিবার, ডাক্তার- এদের সাহায্য নেয়া যায়। এখানে লজ্জার কিছু নাই।

১৮. উপুর হয়ে ঘুমাবেন না। ঘুমের মাঝে লিঙ্গ উত্তেজিত হলে বাথরুমে গিয়ে প্রসাব করে আসবেন।

১৯. বিকেলের পরে উত্তেজক ও গুরুপাক খাবার খাবেন না।

২০. মেয়েবন্ধু বা প্রেমিকাদের সাথে শুয়ে শুয়ে, নির্জনে বসে প্রেমালাপ বা যৌনালাপ করবেন না।

২১. আপনি  যদি বিবাহের উপযুক্ত হয়ে থাকেন এবং বিবাহ করার সামর্থ্যবান হোন, মানে আপনার পরিবার সচ্চল অবস্থা থাকে  তাহলে বিবাহ করে ফেলুন। চাকরীর আশায় বসে থাকবেন না। বাবা-মা’দেরও উচিৎ প্রাপ্ত বয়স্ক ছেলে-মেয়েদের যথা দ্রুত সম্ভব বিবাহ দিয়ে দেওয়া।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ