শরীর নিয়ে মজাদার কিছু তথ্য!

অনলাইন ডেস্ক :মানুষের শরীরের অন্দরে যে কত চমক রয়েছে তা ভাবলেই অবাক হয়ে যেতে হয়। শরীরে বাইরে হাত-পা, নাক-মুখ চোখ যেমন আছে, তেমনই শরীরের ভিতরে হাড়, শিরা, ধমণী, যকৃৎ, কিডনি সহ কত কি আছে। তবে এ লো মোটামুটি আমাদের সকলেরই কম বেশি জানা।

কিন্তু শরীরের ভিতরের এমন অনেক রহস্য রয়েছে যা অনেকেই জানেন না। আজ আমরা সেই অজানা তথ্যগুলো চটপট দেখে নেওয়া যাক।

১. অনেক সময় শরীরের হাড় মটকানোর আওয়াজ আসে। অনেক সময় আমরাই ইচ্ছাবশত হাড় মটকে আওয়াজ বের করি। এই আওয়াজ আসলে হাড়ের সংযোগস্থলের তরল পদার্থের বুদবুদ। দৈনন্দিন এই হাড় মটকানোর অভ্যাস এড়িয়ে চলা উচিত। দীর্ঘকালীন সময়ে এটি শরীরের হাড় ও ধমণীকে ক্ষতিগ্রস্ত করে।

২. কথায় বলে ঘামের গন্ধ। কিন্তু বাস্তবে আমাদের শরীর থেকে যে ঘাম নির্গত হয় তাতে কোনও গন্ধ থাকে না। দুর্গন্ধ তখনই হয় যখন ব্যাকটেরিয়া ঘাম প্রবণ এলাকায় বসবাস করতে শুরু করে।

৩. আপনি কি জানেন, মানুষের এক ফোঁটা রক্তের মধ্যে ১০,০০০ শ্বেত কণিকা এবং ২,৫০,০০০ প্লেটলেট থাকে। তাহলে একবার ভেবে দেখুন আপনার শরীরে যত রক্ত রয়েছে তাতে কত পরিমাণ শ্বেত কণিকা ও প্লেটলেট রয়েছে।

৪. আমাদের মস্তিষ্ক কুঁচকানো একটি অঙ্গ শরীরের। কিন্তু মস্তিষ্ক টান টান হলে তার আকার মাথার বালিশের ঢাকার মতো হতো। এবং ৬ বছর বয়সের এক শিশুর মস্তিষ্ক পূর্ণবয়স্ক মানুষের মস্তিষ্কের ৯০ শতাংশ।

৫. লিভার বা যকৃৎতের ক্ষমতা রয়েছে বেড়ে নিজের স্বাভাবিক আকার নেওয়ার। অর্থাৎ কোনও অস্ত্রপোচার বা অন্য যে কোনও কারণে যদি যকৃতের কোনও অংশ বাদ দিতে হয় তাহলে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে নিজের স্বাভাবিক আকার ও আয়তনে চলে আসতে পারে যকৃৎ।

৬. আমাদের মুখের লালা গ্রন্থি থেকে প্রতিদিন ৬ কাপ লালা নির্গত হয়। গড়ে বলা যেতে পারে প্রতিদিন আমাদের মুখ থেকে ১.৫ লিটার লালা নির্গত হয়।

৭. মানুষের শরীরের শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করার ৪ মিনিটের পর থেকে শরীরে পচন ধরতে শুরু করে। শরীরের এনজাইম এবং ব্যাকটেরিয়া এই প্রক্রিয়ায় সাহায্য করে।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment