মাধুরীর হাফ সেঞ্চুরি, এখনো আগের মতোই!

বিনোদন ডেস্ক: সোমবার ছিল মাধুরীর জন্মদিন। ৫০ বছরে পা দিলেন তিনি। কিন্তু তাকে দেখে বয়স বোঝার কোনও উপায় নেই। এবারের জন্মদিনেও হাজারো মানুষের ভালবাসা, শুভেচ্ছা বার্তা পেয়েছেন মাধুরী। সব কিছু সামলে পরিবারের সঙ্গেই এই দিনটা সেলিব্রেট করেন তিনি। মাধুরী ১৯৬৭ সালের ১৫ মে জন্মগ্রহণ করেন।

ঘরোয়া পার্টিতে আনন্দ করাই তাকে সবচেয়ে বেশি রিফ্রেশ করে। বয়স ধরে রাখা, দীর্ঘদিন ধরে একটানা দর্শকদের মনে জায়গা করে নেওয়ার রহস্যটা কী? না! মাধুরী নিজে সে বিষয়ে মুখ খুলতে চাননি কোনওদিনই। তবে তার ক্যারিয়ারের দিকে চোখ রাখলে বোঝা যাবে কিছু জন্মগত ক্ষমতাকে খুব সহজ কিছু নিয়মে বেঁধে রেখেছেন নায়িকা।

মাধুরীর হাসি নিয়ে অনেক চর্চা রয়েছে সিনে মহলে। একবাক্যে অনেকেই স্বীকার করেন এই হাসিতে জাদু রয়েছে। যা দিয়ে বছরের পর বছর দর্শকদের পছন্দের তালিকায় রয়েছেন তিনি। লাল লিপস্টিক মাধুরীর পছন্দের। তিনি মনে করেন, তাঁর ত্বকের রঙের সঙ্গে লাল লিপস্টিকই ভাল মানায়।

অভিনয়ে শুধু সৌন্দর্য নয়। অভিনয়েও যে তিনি সেরা তা একাধিকবার প্রমাণ করেছেন মাধুরী। ‘তেজাব’, ‘দিল’, ‘বেটা’, ‘হাম আপকে হ্যায় কৌন’, ‘দিল তো পাগল হ্যায়’, ‘গুলাব গ্যাং’ একাধিক বক্স অফিস হিট দিয়েছেন তিনি। তেমনই বিভিন্ন পুরস্কারও জিতেছে তাঁর অভিনীত ছবি।

ফিল্ম হোক, স্টেজ অথবা রিয়ালিটি শো— মাধুরীর নাচে মন্ত্রমুগ্ধ দর্শক। দীর্ঘদিন কত্থক শিখেছেন। নাচের মুদ্রায় তিনি যেমন অনাবিল আনন্দ খুঁজে পান, তেমনই এই অভ্যেস তাঁর বয়স ধরে রাখার টোটকাও বটে। ‘ধক ধক’ গানে মাধুরীর এক্সপ্রেশন এক মুহূর্তে তাঁকে ইন্ডাস্ট্রির ‘ধক ধক’ গার্ল তকমা দিয়েছিল। আবার ‘হাম আপকে হ্যায় কৌন’-এ সালমান খানের সঙ্গে বড়পর্দায় রোম্যান্স তাঁকে পৌঁছে দিয়েছিল অন্য মাত্রায়। ফলে বড় পর্দায় তাঁর সেনসুয়াল পারফরম্যান্সও দর্শকদের পছন্দের তালিকার শীর্ষে।

ব্যক্তিগত জীবন কী করে ব্যক্তিগত রাখতে হয় তা বোধহয় মাধুরীর কাছ থেকে শেখার। সঞ্জয় দত্তের সঙ্গে তাঁর ডেটিংয়ের জল্পনায় একসময় সরগরম ছিল ইন্ডাস্ট্রি। কিন্তু তারপর গ্ল্যামার ওয়ার্ল্ড বা মিডিয়া থেকে পার্সোনাল লাইফকে একেবারে আলাদা করে রেখেছেন মাধুরী।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment