প্রশ্নঃ আমার স্ত্রী পায়ুপথে সহবাস করতে চায়। কিভাবে করবো?

প্রশ্নঃ আমার  স্ত্রী পায়ুপথে সহবাস করতে চায়। বাট পেনিস পায়ুপথে প্রবেশ করাতে পারিনা। জোর করে প্রবেশ করানো টা কি ঠিক হবে?  আর করলে কি করবো?

প্রশ্ন করেছেনঃ Roy Ajit কলকাতা থেকে।

উত্তরঃ প্রশ্ন করার জন্য দাদা আপনাকে ধন্যবাদ।

প্রথমতঃ পায়ুপথে সঙ্গম করা ইসলামে হারাম হলেও হিন্দু ধর্মে কি তা আমি জানিনা। হিন্দু যৌন শাস্ত্র গুলোতে পায়ুপথে সঙ্গমের বিধি-নিষেধ আমি পায়নি। তবে আমি জোর করে ইসলামের মতবাদ আপনার উপরে চাপিয়ে দেবোনা। এখানে কিছু যুক্তিক আলোচনার দ্বারা আপনাকে বিষয়টি বুঝানোর চেষ্টা করবো। আপনার কাছে ভালো লাগলে মানার চেষ্টা করবেন।

আমার  মতে পায়ুপথে সঙ্গম করা অপ্রাকৃতিক এবং যৌন বিকৃতি আচরণ। আমার ধারণা আপনার স্ত্রী এই বিকৃতি আচরণটি কোন পর্ণগ্রাফী ভিডিও থেকে পেয়েছে। যার কারণে তার মনে এই বিকৃত রুচিতে যৌন সুখ লাভের ইচ্ছে জেগেছে।

দ্বিতীয়তঃ পায়ুপথ ও যৌনপথের বৈশিষ্ট এক নয়। নারীর এই দুইটি অঙ্গের রয়েছে আলাদা বৈশিষ্ট ও কাজ। পায়ুপথের কাজ হচ্ছে শুধু মাত্র মল ত্যাগ করা। কিন্তু যোনির পথের কাজ হচ্ছে মূত্রত্যাগ থেকে শুরু করে বাচ্ছা প্রসব পর্যন্ত।  যৌনপথে মিলনই অধিক সুখের। একজন নারীর  দেহে যখন যৌন উত্তেজনা সৃষ্টি হয় তখন পিচ্ছিল তরল স্রাব দিয়ে নারীর যোনিপথ ভিজে যায় যার ফলে লিঙ্গ চালনা পুরুষের পক্ষে সহজ হয়। এতে নারী পুরুষ উভয়েই আনন্দ লাভ করে। আমার জানা মতে এই স্রাব পুরুষের লিঙ্গের পক্ষেও উপকারি। কিন্তু নারীর দেহে যৌন উত্তেজনা সৃষ্টি হলে পায়ুপথের বেলায় এরকমটি ঘটেনা।  যদি এই পিচ্ছিল স্রাব দিয়ে নারীর যোনিপথ ভিজে না যেতো তাহলে একজন নারীর পক্ষে যৌন সঙ্গম চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হতো না। তার যৌন সুখের বদলে  যোনিপথে জ্বালা হতো এবং ব্যথা অনুভূত হতো। তাই আমার মতে  যৌন সঙ্গমের প্রকৃত স্থান নারীর #যোনিপথ।

তৃতীয়তঃ জোর করে পায়ুপথে #সহবাস করতে বা লিংগ প্রবেশ করাতে গেলে পায়ুপথের ত্বক ছিড়ে ক্ষত হতে পারে। যার ফলে ঘটতে পারে মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকি। এই ক্ষত থেকে মলত্যাগের সময় ব্যথা থেকে শুরু করে ক্যানসারে রূপ নিতে পারে। তবে যেসব ডাক্তার ও যৌনবিদগণ পায়ুপথে সঙ্গম করার পক্ষালম্বি তারা পায়ু সঙ্গমের সময় লুবিকেট জেল ব্যবহার করার পরামর্শ দেন।

চতুর্থতঃ পায়ুপথে সঙ্গম করা একদল বিকৃত মস্তিঙ্ক পুরুষদের কাজ। পর্ণগ্রাফীর অভিনয়েরত যেসব পুরুষ ও নারীরা নিজেদের লজ্জা-শরম কোটি মানুষের সামনে প্রকাশ করতে দ্বিধাবোধ করেনা, তাদের দ্বারা সবই সম্ভব। এই বিকৃত যৌন কালচার প্রথম শুরু করেছিলেন লূত (আঃ) এর সম্প্রদায়ের লোকেরা। তারা নারীদেরকে রেখে পুরুষে পুরুষে সঙ্গমে লিপ্ত হতো। যাকে আমরা #সমকাম বলি।

পঞ্চমঃ যারা পায়ুপথে সঙ্গম করার পক্ষালম্বি, তাদেরকে বলি, আপনাদের চাইতে এপৃথিবীর পশু-পাখির চিন্তা-ধারা অনেক উন্নত। আপনি সৃষ্টির সেরা জীব হয়েও চিন্তা-চেতনায় ও কাজ কর্মের দ্বারা পশুদের চাইতেও  নীচে গেছেন।

ষষ্ঠঃ আপনি কোথাও যেতে ইচ্ছুক। আপনার সামনে দুইটি রাস্তা আছে। একটি ভাঙ্গাচুড়া ও কাদা-ময়লা যুক্ত। আরেকটি ধুলাবালি মুক্ত আরামদায়ক রাস্তা। আপনি কোনটিতে আপনার গন্তব্যস্থলে রওয়ানা হবেন? বুদ্ধিমানরা নিশ্চয় কাঁদা যুক্ত পথে যাবে না।

আমরা যুক্তিক উত্তর দ্বারা আপনাকে বুঝানোর চেষ্টা করেছি। আশা করি আপনিও আপনার স্ত্রীকে বুঝিয়ে তার মন থেকে যৌন বিকৃতি দূর করবেন। এবং চিন্তা-চেতনায় এবং কাজ কর্মে পশুদের চাইতে নীচে না নামার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন। আপনাদের দাম্পত্য জীবন সুখী ও সুন্দর হোক।

উত্তর লিখেছেনঃ  সৈয়দ রুবেল। (প্রতিষ্ঠাতা ও সম্পাদকঃ আমার বাংলা পোস্ট)

 

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment