চাই না আমার সন্তান মিডিয়ার মানুষ হোক

0

অনলাইন ডেস্ক: তারকা দম্পতি শাকিব-অপুর একমাত্র সন্তান আব্রাম খান জয়। কিছুদিন আগে শাকিব-অপুর বিয়ে নিয়ে বেশ মাতামাতি হয়েছে। অনেকে জয়কে নিয়েও মেতে উঠেছিলেন। দিনে দিনে সব আলোচনায় শীতলতা নেমেছে।

শাকিব ব্যস্ত হয়েছেন শুটিংয়ে। অপু সামলাচ্ছেন সংসার, প্রস্তুতি নিচ্ছেন নতুন করে প্রত্যাবর্তনের। এরই ফাঁকে নিজের বিয়ে-সন্তান ও চলচ্চিত্র প্রসঙ্গে ব্রিটিশ ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশনকে (বিবিসি) দীর্ঘ সাক্ষাৎকার দিয়েছেন অপু বিশ্বাস। তারই চুম্বকাংশ তুলে ধরা হলো পাঠকদের জন্য-

অপু জানান, শাকিব-অপু দুজনই রুপালি পর্দায় নিজের অবস্থান মজবুত করলেও মা হিসেবে তিনি চান না তার সন্তান (আব্রাম খান জয়) বড় হয়ে মিডিয়ায় কাজ করুক। জয়ের ভবিষ্যৎ নিয়ে অপু ওই সাক্ষাৎকারে আরও জানান, ‘জয় তার পিতা-মাতার মতো তারকা হোক এটা আমি চাই না।’

অপু বলেন, ‘আমি আমার ছেলেকে আরসব মানুষদের থেকে আলাদা করতে চাই না। ও (জয়) পড়াশোনা শিখে ভালো একজন মানুষ হোক। মিডিয়া তো অনেক জানার অনেক শেখার জায়গা, হয়তো আমার ছেলে সেটা পারবে না। এখানে কাজ করা অনেক কঠিন। অনেক দায়িত্ব নিতে হয়। মা হিসেবে এত ভারী দায়িত্ব আমার ছেলে কাঁধে নিয়ে ঘুরছে সেটা দেখতে চাই না আমি। অভিজ্ঞতা থেকেই বলছি।’

দীর্ঘ ওই সাক্ষাৎকারে অপু জানান, শাকিবের সঙ্গে বিয়ের নেপথ্যে এবং আগামীর পরিকল্পনা। অপু বলেছেন, ‘আমার ছেলের বয়স এখন সাত মাস। তার বয়স এক বছর হলে আমি আবার পুরোপুরি চলচ্চিত্র ফিরব।’ এক প্রশ্নের জবাবে অপু বলেন, ‘নায়িকাদের বিয়ে বা সন্তান হয়ে গেলে ক্যারিয়ার ধ্বংস হয়ে যায় বলে যে ধারণাটি প্রচলিত রয়েছে, সেটি অত্যন্ত ভুল একটি ধারণা। আমি যে বিয়ের পরে আট বছর কাজ করেছি, কেউ বুঝতে পেরেছে?’

তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি, মা বা বিয়ে হওয়া এটা কোনো সমস্যা নয় নায়িকার জন্য। কারণ যে নায়িকারা মেইনটেইন করতে জানেন তারা চিরদিন নিজেকে ফিট রাখতে পারেন। আমাদের মানসিকতা ঠিক করতে হবে যে আমরা নায়িকার কি দেখতে চাই। তার গ্ল্যামার আর অভিনয়ের কারুকাজ? নাকি ও মা হয়েছে ভেবে ওকে আলাদা করে দেখতে চাই, ধ্বংস করতে চাই?’

উল্লেখ্য, শাকিব-অপু গোপনে বিয়ে করেন ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল। বিয়ের ৮ বছরের মাথায় তাদের কোল জুড়ে আসে এক পুত্রসন্তান, নাম আব্রাম খান জয়। ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর কলকাতার একটি ক্লিনিকে সিজারের মাধ্যমে জয়ের জন্ম হয়।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ