ফেইসবুক স্ট্যাটাসে গ্রেপ্তার ছাত্র ইউনিয়ন নেতার মুক্তি দাবি

0

চায়নার বিরুদ্ধে ছাত্রলীগ নেতার তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা দায়েরের সমালোচনা করে তারা বলছে, একে ‘ব্লাসফেমি’ আইনের মত ব্যবহার করা হচ্ছে।

শনিবার ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সভাপতি জিএম জিলানী শুভ ও সাধারণ সম্পাদক লিটন নন্দী স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়, ছাত্র ইউনিয়ন কখনোই কারও ব্যক্তিগত ধর্ম অনুভূতির প্রতি বিদ্বেষ পোষণ করে না।

“ছাত্র ইউনিয়ন মনে করে, ধর্ম যার যার রাষ্ট্র সবার এবং এটিই মুক্তিযুদ্ধ ও বাহাত্তরের সংবিধানের মূল চেতনা। আর চায়না পাটোয়ারির ফেইসবুক স্ট্যাটাসটি কারও ব্যক্তিগত ধর্মানুভূতিতে আঘাত হানবার মতো নয়।”

চায়নাসহ ছাত্র ইউনিয়নের সব নেতাকর্মীর নামে দায়ের করা ‘মিথ্যা মামলা’ প্রত্যাহার এবং গ্রেপ্তারদের মুক্তি দাবিতে রোববার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ-সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে ছাত্র সংগঠনটি।

রাঙামাটির লংগদুতে বৃহস্পতিবার এক যুবলীগ নেতার লাশ উদ্ধারের পরদিন একদল লোক সেখানকার কয়েকটি পাড়ায় পাহাড়িদের ঘরবাড়িতে আগুন দেয়।

এ ঘটনার পর ফেইসবুকে দেওয়া স্ট্যাটাসের কারণে স্থানীয় ছাত্রলীগ কর্মী এহসান উদ্দিন ঋতু শুক্রবার ছাত্র ইউনিয়নের রাঙামাটি জেলা শাখার সাংস্কৃতিক সম্পাদক চায়না পাটোয়ারির বিরুদ্ধে ৫৭ ধারায় একটি মামলা করেন।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী চায়নাকে নিরাপত্তা হেফাজতে নেওয়ার পাঁচ ঘণ্টা পর রাত ১১টায় ঋতু ওই মামলাটি করেন জানিয়ে বিবৃতিতে বলা হয়,  “রাজনৈতিক হীন স্বার্থ চরিতার্থ করতেই এ মামলা।”

লংগদুর ঘটনায় সিপিবির নিন্দা

পাহাড়িদের বাড়িঘরে আগুন দেওয়ার ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তার করে শাস্তি নিশ্চিতের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবি।

দলটির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম এবং সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে ওই ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলা হয়, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, সেনাবাহিনী এবং স্থানীয় প্রশাসনের উপস্থিতিতে এ ধরনের ঘটনা উদ্বেগজনক।

পাহাড়িদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে ক্ষতিগ্রস্তদের পুড়িয়ে দেওয়া বাড়ি নতুন করে তৈরি করে দেওয়ারও দাবি জানিয়েছে দলটি।

আলাদা আরেক বিবৃতিতে গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার এবং মঞ্চের সংগঠক ও উদীচীর কেন্দ্রীয় নেতা সনাতন মালোর বিরুদ্ধে করা মানহানির মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে সিপিবি।

অপর এক বিবৃতিতে মানবাধিকারকর্মী সুলতানা কামালের বিরুদ্ধে ধর্মীয় সংগঠন হেফাজতে ইসলামের ‘মিথ্যা অভিযোগ ও কুৎসা রটনার’ বিষয়টি কঠোরভাবে দমনের দাবি জানিয়েছে দলটি।

“হেফাজতের কাছে সরকারের নতি স্বীকারের ফলে তাদের দাবি-দাওয়া ক্রমাগত উগ্র হয়ে উঠছে। তারা দেশের বিশিষ্ট ও সম্মানি ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মনগড়া, বানোয়াট ও মিথ্যা অভিযোগ তুলে তাদের সম্মানহানির অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে।”

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

ব্রেকিং নিউজঃ