প্রশ্নঃ কখন সহবাস করলে মেয়ে হয় আর কখন সহবাস করলে ছেলে হয়?

উত্তরঃ এই প্রশ্নের কোনো বিজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। এটা কোনো ভাবেই বলা যাবেনা অমুক সময় সহবাস করলে ছেলে হবে এবং অমুক সময় করলে মেয়ে হবে। কেননা মহান আল্লাহ তাঁর পবিত্র কালাম শরীফে বলেনঃ

“আল্লাহ যাকে ইচ্ছা কন্যা সন্তান দান করেন, যাকে ইচ্ছা পুত্র সন্তান দান করেন অথবা ছেলে-মেয়ে উভয়ই দান করেন। আবার যাকে ইচ্ছে বন্ধ্যা করেন।” (সূরা আশশূরা ৪২:৫০)

তাই আমাদের আমাদের আল্লাহর ফয়সালার উপর সন্তুষ্ট থাকতে হবে।

প্রত্যেক বাবা মায়ের ফুট ফুটে সন্তান লাভের আশা থাকে যা তাদের দাম্পত্য জীবনকে পূর্ণ ও সার্থক করে তুলবে।

অপর দিকে সন্তান লাভের জন্য যে উপকরনটির প্রয়োজন হয় তাঁর নাম হচ্ছে শুক্র। বিজ্ঞানীদের মতে প্রতি এক ফোঁটায় বীর্যে ২০ লক্ষ শুক্রকীট থাকে। তাঁর মধ্যে থেকে মাত্র একটি শুক্রকীটের প্রয়োজন হয় সন্তান জন্মদানের। লক্ষ লক্ষ শুক্রকীট থেকে মাত্র একটি শুক্রকীট জরায়ুতে অপেক্ষায়মান থাকা ডিম্বাণুতে প্রবেশ করে। বাকী ডিম্বানু অব্যবহৃত থেকে যায়। ঐ লক্ষ লক্ষ শুক্রকীটকে ফিল্টারের মাধ্যমে বাছাই করে জানার কোনো উপায় নেই যে এর মধ্যে থেকে কোনো টি স্ত্রী লিঙ্গ এবং কোনটি পুংলিঙ্গ। বা ডিম্বাণুতে যেটা প্রবেশ করছে সে টি কোন লিঙ্গ। বিষয়টি পরিস্কার হয় যখন ভ্রুণ তৈরি হওয়ার কয়েক মাস অতিবাহিত হয়। অঙ্গ প্রত্যঙ্গ গঠন হওয়ার পর জানা যায় গর্ভের অবস্থান রত ভ্রুণটি কোন লিঙ্গ বহন করে। আপনি চাইলে একটি ভিডিও দেখে বিষয়টি বুঝে নিতে পারেন। ভিডিওঃ যেভাবে একটি নারী গর্ভধারণ হয়

অতএব আমাদেরকে সৃষ্টিকর্তার ফায়সালা মেনে নিতেই সন্তুষ্টি থাকতে হবে। আর কন্যা সন্তান আল্লাহর এক অপূর্ব নেয়ামত। ছেলে সন্তানের আশায় এই নেয়ামতকে হাত ছাড়া করা বোকা ব্যতীত আর কিছু নয়। সন্তান ছেলে বা মেয়ে না চেয়ে সৃষ্টি কর্তার কাছে সুসন্তান চান। সে হোক ছেলে বা মেয়ে, সমাজে আপনার সম্মান বাড়াবে বৈ কমাবে না।

তবে অনেকের ছেলে সন্তান লাভের আশা থাকে কিংবা অনেকের একের পর এক মেয়ে হচ্ছে কিন্তু ছেলে হচ্ছে না। এমতাবস্থায় বংশের প্রদীপ রক্ষার্থে ছেলের সন্তানের লাভের আক্ষাঙ্খা প্রত্যেক বাবা মায়েরই থাকে। এই সাবজেটে আমাদের সমাজের একটি ঘৃণ্য চিত্র দেখা যায় যে, ছেলে সন্তান না হলে নারীকে দোষারূপ করা হয়। যা পুরোটাই অন্যায়। এটি  আমাদের সমাজের পুরুষেরা বুঝতে চায় না বা চেষ্টা করে না। যার ফলে নারীকে কটু কথা শুনতে হয়। মহান আল্লাহ পাক তার পবিত্র কালাম শরীফে বলেন, “তোমাদের স্ত্রীরা হচ্ছে তোমাদের জন্য শস্যক্ষেত। তাই তোমাদের শস্যক্ষেতে যাও, যেভাবে তোমরা চাও। নিজেদের জন্য আগামী দিনের ব্যবস্থা করো। আর আল্লাহর تعالى প্রতি সাবধান! জেনে রেখো তোমরা তাঁর সামনা সামনি হতে যাচ্ছো। আর যারা পূর্ণ বিশ্বাসী হয়ে গেছে, তাদেরকে সুসংবাদ দাও।” [আল-বাক্বারাহ ২২৩]

এখানে শস্যক্ষেত দিয়ে আল্লাহ পাক বুঝিয়েছেন, এখানে আপনি যা রোপন করবেন তাই হবে। কোন ব্যতিক্রম হবে না।  আপনি খেতে টমোট গাছ লাগিয়ে তো সেখান থেকে অ্যাপেল ফল আশা করতে পারেন না নিশ্চয়? এমন ভাবনাটা নিশ্চয় বোকামী হবে তাই না? তবে আপনি আশরাফ আমরহী পরামর্শ গ্রহণ করে দেখতে পারেন। তবে আমি তার সাথে একমত নয়। তিনি তার একান্ত নির্জনে গোপন কথা বইতে এই তথ্যটি দিয়েছেন। পড়ুনঃ ছেলে সন্তান লাভের উপায়

আশা করি আপনি আপনার প্রশ্নের সঠিক  উত্তর পেয়েছেন।

উত্তর দিয়েছেনঃ সৈয়দ রুবেল। (প্রতিষ্ঠাতা ও সম্পাদকঃ আমার বাংলা পোস্ট.কম)

Please follow and like us:

Related posts