চাঁপাইনবাবগঞ্জের কানসাটে আম কেনা-বেচা বন্ধ, আমচাষি সমাবেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: আমের রাজধানী চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার কানসাটের আমের আড়তগুলোতে গত দুইদিন থেকে বেচা-কেনা বন্ধ রয়েছে। আড়তে আম বিক্রেতাদের কাছ থেকে মনপ্রতি পাঁচ টাকা হারে কমিশন ও ৪৬ কেজিতে প্রতিমন আম কেনার প্রতিবাদে বিক্রেতারা আম বিক্রি করছেন না। অন্যদিকে আড়তদাররাও আম কিনছেন না।

শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শফিকুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, জেলা প্রশাসন থেকে এবার আম চাষি বা বিক্রেতাদের কাছ থেকে ৪০ কেজিতে মনের অতিরিক্ত আম ও কোন কমিশন আদায় না করার জন্য নিয়ম বেঁধে দেওয়া হয়েছে। তবে এ নিয়ম মানছেন না আড়তদাররা। এ জটিলতায় আম বেচা-কেনা বন্ধ রয়েছে। এতে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন সকল পক্ষই। এ সমস্যা নিরসনে চেষ্টা চলছে। এজন্য কানসাট ইউপি চেয়ারম্যান বেনাউল ইসলামকে প্রধান করে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

তিনি সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে এ জটিলতা নিরসনে কাজ করবেন। তবে আড়তে আম বিক্রেতাদের কাছ থেকে কমিশন আদায়ের ব্যাপারে প্রশাসন কোন ছাড় দিবেন না। কানসাট ইউপি চেয়ারম্যান বেনাউল ইসলাম জানান, এ সমস্যা নিরসনে সংশ্লিস্ট সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করা হবে।  এদিকে কানসাটে আমের আড়তে ৪৬ কেজিতে মন, কমিশন ছাড়াই বেশি আম নেওয়া বন্ধ ও ডিজিটাল মিটারে আম বিক্রয়সহ বিভিন্ন সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের দাবিতে আম বাগান মালিক ও আম চাষিদের নিয়ে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার বেলা ১১টায় কানসাট শাপলা সিনেমা হলের পাশে আম বাগানে এ সমাবেশের আয়োজন করে জেলা ও শিবগঞ্জ উপজেলা আমচাষি উন্নয়ন সমন্বয় সমিতি। কানসাট ইউপি চেয়ারম্যান বেনাউল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে জেলা প্রশাসক মাহমুদুল হাসান, বিশেষ অতিথি হিসেবে পুলিশ সুপার মোজাহিদুল ইসলাম বক্তব্য দেন।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ওয়ারেছ আলী মিয়া, শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শফিকুল ইসলাম, শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিবুল ইসলাম, আমচাষি উন্নয়ন সমন্বয় সমিতি, জেলা শাখার সহসাধারণ সম্পাদক আতিকুল ইসলাম চৌধুরী, শিবগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি অধ্যক্ষ আতাউর রহমান প্রমূখ।

বক্তারা বলেন, আমের বাজার সচল রাখতে ঠক ও প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা  হবে। এজন্য সকলের সহযোগিতার আহ্বান জানানো হয়। এদিকে দেশের বৃহত্তম আম বাজার কানসাটে দুদিন ধরে আম বেচা-কেনা বন্ধ থাকায় ক্ষতির মুখে পড়েছেন আম সংশ্লিস্ট সব পক্ষই। জেলার গোমস্তাপুর ও ভোলাহাট উপজেলায় ৪০ কেজির অতিরিক্ত ৫-৭ কেজি সহ মন হিসেবে আম ক্রয় বেচা-কেনা অব্যহত রয়েছে বলে জানা গেছে।

Related posts

Leave a Comment