চাঁপাইনবাবগঞ্জে ট্রাফিকপুলিশের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

0
মোঃ জমশেদ আলী(শান্ত)ঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জে অন্যান্য  জেলার তুলনায় মোটরসাইকেলের ব্যবহার তুলনামূলক বেশি। মটরসাইকেল যানবহন মানুষের আরামদায়ক, পাশা-পাশি কম সময়ে গন্তব্যে পৌঁছানো, নিজ স্বাধীন যানবহন  হওয়ায় মানুষ এই যাবহনের পিছনে প্রতিনিয়ত ঝুকে পড়ছে। আবার এই যানবহনে চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ বটে। প্রতিনিয়ত মটরসাইকেল দুর্ঘটনার   খবর  ও পাওয়া যায়। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর  হাসপাতাল সুত্রে জানা যায়  শতকরা ৮০ ভাগ দুর্ঘটনা মটরসাইকেলের। আর এই দুর্ঘটনার প্রধান কারন মটরসাইকেল চালানোর ক্ষেত্রে ড্রাইভিং নিয়মের তোয়াক্কা  না করা কে চাঁপাইনবাবগঞ্জের পুলিশসুপার  টিএম মোজাহিদুল ইসলাম বিপিএম  দায়ী করেছেন। মটরসাইকেল চালকদের দুর্ঘটনা এড়াতে ও আইনশৃংখলা স্বাভাবিক রাখতে বৈধ্য কাগজ ও হেলমেট ছাড়া গাড়ী রাস্তায় যাহাতে নামতে না পারে এব্যাপারে  পুলিশসুপার ট্রাফিকপুলিশদের নির্দেশ দেন। তিনি বলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জে বৈধ্য কাগজ ও হেলমেট বিহীন কোন গাড়ী রাস্তায় চলাচলের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হলো। পুলিশসুপার নিষেধাজ্ঞা দিয়ে ক্ষান্ত হননি তিনি নিজে ট্রাফিকপুলিশদের সাথে নিয়ে রাস্তার গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে দাড়িয়ে অভিজান অব্যাহত রেখেছেন। সে ক্ষেত্রে পুলিশ প্রশাসন, সাংবাদিক, সরকারী দলের নেতা,সাধারন জনগন কাওকে তিনি ছাড় দিচ্ছে না। অভিজানের ব্যাপারে আমাদের প্রতিনিধি ( ডিবি) পুলিশের  কাছে জানাতে চাইলে তিনি বলেন আমার গাড়ীর কাগজপত্র সব অাছে হেলমেট নষ্ট ছিল আমি নতুন হেলমেট ক্রয় করলাম। পুলিশসুপার স্যার এব্যাপারে  খুবই কঠোর।পুলিশসুপারের নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে ট্রাফিক ইন্সপেক্টর মোঃ খলিলুর রহমান বলেন আমাদের সকল সার্জেন্ট সহ আমরা এখন রাস্তার গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে অবস্থান নিয়ে আমাদের অভিজান চলমান  রয়েছে  । ভুক্তভোগী  সরকারী দলের  এক নেতা বলেন দলিয় পরিচয় দিয়ে ও হেলমেট না থাকায়   কেশ ক্ষেতে হয়েছে। বিশেষ  করে সার্জেন্ট, আব্দুল আলিম, মোঃ জাকির হোসেন, মোঃ শাহাদাৎ, মোঃ মিজান টিএসআই মোঃ আমির হোসেন মোঃ মফিজুর রহমান, তারা পুলিশসুপারের নির্দেশনা পালন করতে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। পাশা-পাশি ট্রাফিক আইন মেনে চলা চালকদের কে উদ্বূদ্ধ করতে বৃহস্পতিবার সকালে কোর্ট চত্বরে টিআই মোঃ খলিলুর রহমান ও আব্দুল আলিম হেলমেট পরিহিত চালকদের গোলাপ ফুল দিয়ে অভিনন্দন জানানো হয়। কয়েকজন মটরসাইকেল চালকের সাথে কথা বলে জানা যায় পুলিশসুপারের এই  নির্দেশনা কে সাধুবাদ জানান। চালকের নিরাপদ ভ্রমনের জন্য ড্রাইভিং নিয়মকানুন মেনে চলা শতভাগ প্রয়োজন।  সাধারন পথচারীরা স্থথি প্রকাশ করে বলেন পুলিশ সুপারের এই নির্দেশনা বাস্তবায়নের মধ্যেই দিয়ে বৈধ্য  কাগজ, ও হেলমেট  বিহীন অদক্ষ চালক কিংবা প্রশিক্ষণ না নিয়ে কেহ রাস্তায়  নামতে পারবেনা। পক্ষান্তরে চালক ও পথচারী বলেন দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেতে পাশা-পাশি  নিরাপদ ভ্রমনের জন্য   পুলিশসুপারের এই উদ্বোগকে সাধুবাদ জানান।
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ