শিবগঞ্জ সীমান্তে ককটেল বিস্ফোরণ : আহত ৫

নিজস্ব প্রতিবেদক: চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার রঘুনাথপুর সীমান্তে ভারতীয় গরু আনা-নেয়াকে কেন্দ্র করে খাঁকচা পাড়া ও কুকড়ী পাড়ার লোকজনের মধ্যে বোমাবাজির ঘটনা ঘটেছে। এতে ৫ জন আহত হন। আহতরা হলেন,কুকড়ী পাড়া গ্রামের দাসুর ছেলে আমিন (২০), জয়নালের ছেলে হাবিবুর (৩০),জিয়াউর রহমানের স্ত্রী রফিনা খাতুন (২৫),জালাল উদ্দিনের ছেলে টুটুল (১০) ও শফিকুল ইসলামের ছেলে রুবেল(২৪)। আহতদের মধ্যে গুরুতর আহত হাবিবুর ও আমিনকে শিবগঞ্জ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাবিবুল ইসলাম বলেন, ভারতীয় গরু আনা-নেয়াকে কেন্দ্র করে খাঁকচা পাড়া ও কুকড়ী পাড়ার লোকজনের মধ্যে সামান্য সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে তিনিসহ পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে লাল টেপে মোড়ানো ৩টি বোমাসাদৃশ বস্তু উদ্ধার করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

এলাকাবাসী জানায়, গত কাল বুধবার সকালে স্থানীয় রাখালরা তাদেরকে গরু আনার সুযোগ দেওয়ার দাবি করেন খাটাল মালিক আব্দুল খালেকের কাছে। এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে আব্দুল খালেকের লোকজন রাখালদের লাঠি সোটা নিয়ে ধাওয়া করে। এক পর্যায়ে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এসময় পুরো এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরে রঘুনাথপুর বিজিবির সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এ সময় সংঘর্ষ এলাকার আশেপাশে কয়েকটি অবিস্ফোরিত ককটেল পড়ে থাকতে দেখা যায় বলে এলাকাবাসী জানায়।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে হামলা ও ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানোর কথা অস্বীকার করে খাটাল মালিক আব্দুল খালেক বলেন, স্থানীয় রাখালরা তাকে সহযোগীতা না করে খাটাল পরিচালনায় বিঘœ সুষ্টি করছে। এ ছাড়া রাখালের নাম দিয়ে স্থানীয়রা জোরপূর্বক গরু নেওয়ার দাবি করছে। আমি শান্তিপূর্ণভাবে বীট পরিচালনা করায় একটি মহল হিংসায় এ ধরণের অপপ্রচার চালাচ্ছে বলে তিনি দাবি করেন।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment