চাঁপাইনবাবগঞ্জে জমির দখল-মালিকানা নিয়ে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক: মাদার তেরেসা পদকপ্রাপ্ত খ্যাতিমান সমাজসেবক ও বিশিষ্ট শিল্পপতি টি ইসলাম বলেছেন, আদিবাসীদের সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দিলু-সেলিম চক্র জমির প্রকৃত মালিকানা স্বত্ত্ব আড়াল করে জমি-পুকুর ভোগ-দখল করতে অপতৎপরতা অব্যাহত রেখেছে। ভূমি অফিসের রেকর্ড তলিয়ে দেখলেই এর সত্যতা মিলবে।

আজ শনিবার দুপুর ১২টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জের জেলা স্বাধীন প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে টি ইসলাম গ্রুপ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে কথাগুলো তিনি বলেন। তিনি আরো বলেন, দিলু-সেলিম চক্রের ষড়যন্ত্রে বর্তমানে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলাধীন ঝিলিম ইউনিয়নের টংপাড়া সংলগ্ন সড়কটি মধ্যযুগীয় অস্ত্রধারী রাজোয়াড় সম্প্রদায়ের সন্ত্রাসী তা-বে সাধারণ জনগণের জন্য আতঙ্কের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণে-অকারণে তারা তীর-ধনুক নিয়ে সড়ক অবরোধ করে নিরিহ জনগণের ওপর হামলা, পণ্যবাহী ট্রাক লুট ও ছিনতাইয়ে লিপ্ত হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন টি ইসলাম গ্রুপের মিডিয়া প্রধান ফারুক আহমেদ চৌধুরী। লিখিত বক্তব্যে তিনি উল্লেখ করেন, রাজোয়াড় সম্প্রদায় টি ইসলামের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। সেই রাজোয়াড় সম্প্রদায়ের করুণা রাজোয়াড় নামে এক নারী টি ইসলামের বিরুদ্ধে ২০১৬ সালে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা থেকে টি ইসলাম গ্রুপের সম্মানিত চেয়ারম্যান তরিকুল ইসলামকে আদালত বেকসুর খালাস দিয়েছে। সদর উপজেলার ঝিলিম মৌজার এস.এ ১৫৭ খতিয়ানের ৭২৬ ও ৭২৭ নম্বর দাগের তফসিলভুক্ত সম্পত্তিটি জমিদারী প্রথা বিলুপ্তির পর ভুল ভাবে পুনরায় জমিদারের নামেই রেকর্ড হয়। এরপর ক্রয় সুত্রে মালিক মো: শফিকুল ইসলাম ১৯৭৯ সালে আদালতে রেকর্ড সংশোধনের মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘ শুনানীর পর ১৯৮৫ সালে আদালত ডিক্রি দেন। ডিক্রির আলোকে জমিটি একাধিক হাত বদলের পর ক্রয় করেন টি ইসলাম গ্রুপের চেয়ারম্যান। তবে রাজশাহীতে সংবাদ সম্মেলনে করুণা রাজোয়াড় নালিশি জমিটি নিয়ে যে মনগড়া তথ্য দেওয়া হয়েছে তা নিঃসন্দেহে অজ্ঞতা নয়, এটা পরিকল্পিত মিথ্যাচার। রাজোয়াড় সম্প্রদায় জমিটি তাদের দখলে থাকার কথা দাবি করলেও তাদের নামে জবর দখল রেকর্ড বা হুকুম দখল রেকর্ডের কোনো দালিলিক প্রমাণ নেই।

টি ইসলাম গ্রুপের লিগ্যাল এ্যাডভাইজার এ্যাডভোকেট সৈয়দ শাহজামাল বলেন, আমার সম্মানীত মক্কেল টি ইসলাম সাহেবের উক্ত জমির মালিকানার স্বপক্ষে দালিলিক নথির কোন ঘাটতি নেই। কিন্তু দিলু-সেলিম চক্রের এমন অপচেষ্টার পেছনে দেশব্যাপী সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টির গভীর ষড়যন্ত্র আছে কি না তা খতিয়ে দেখা দরকার।

পরে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন টি ইসলাম গ্রুপের চেয়ারম্যান জনাব তরিকুল ইসলাম।

Please follow and like us:

Related posts