প্রথম আলোর সাইন বোর্ডে সরকারি জমি দখলের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রথম আলোর চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি আনোয়ার হোসেন দিলুর বিরুদ্ধে রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নের বাবুডাইং মৌজার খাস খতিয়ানভুক্ত সরকারি জমি জবর দখলের অভিযোগ উঠেছে। সরেজমিনে দেখাগেছে প্রথম আলো ট্রাস্টের আলোর পাঠশালা লিখা সাইনবোর্ড। প্রথম আলো ট্রাস্ট পরিচালিত আদিবাসী স্কুল গড়ে উঠেছে সরকারি জমিতে। খাস জমিতে অবৈধভাবে গড়ে উঠা স্কুলটির দখলে রয়েছে ৬৬ শতক জমি। এছাড়া প্রথম আলোর চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি আনোয়ার হোসেন দিলু ও তার সহযোগি মাখনের দখলে রয়েছে আরও ১ একর ৩৩ শতক (চার বিঘা) জমি। কোন কাগজপত্র ছাড়াই ক্রয় সূত্রে মালিক দাবি করে গড়ে তুলছেন আম বাগান। এনিয়ে আদিবাসিদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। সরকারি খাস সম্পত্তি স্থানীয় আদিবাসিদের সহযোগিতায় দিনের পর দিন দখলে নিচ্ছেন প্রথম আলোর এই প্রতিনিধি। সাংবাদিক মানেই ক্ষমতাধর এরকম মিথ্যা হুংকার আর প্রথম আলোর সুনামের দাপটে হয়রানির ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না। সরকারি জমিতে যে কোন স্থাপনা অবৈধ তবে কোন ক্ষমতায় স্কুলের নামে সেমি-পাকা ভবন গড়ে উঠেছে তার কোন উত্তর দিতে পারেননি ইউনিয়ন ভূমি সরকারি কর্মকর্তা ইসরাফিল হক। তিনি জানান- স্কুলের নামে গড়ে উঠা এ স্থাপনাটি সম্পূর্ণরূপে অবৈধ। তবে আদিবাসি ইস্যুর কারণে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ জেনেও উচ্ছেদের পদক্ষেপ নিচ্ছেনা। প্রকৃতপক্ষে জমিটি গলফ স্টেডিয়ামের জন্য বরাদ্দ রয়েছে। একারণেই জমিটি কখনওই স্কুলের নামে বন্দোবস্ত হবে না জানান ইউনিয়ন ভূমি সরকারি কর্মকর্তা । অনুসন্ধানে জানা যায় আনোয়ার হোসেন দিলু, সেলিম জাহাঙ্গীর, মাখন ও বঙ্গপাল আদিবাসিদের ব্যবহার করে জমি দখলের উদ্দেশ্যে দিলু-সেলিম নামে ভয়ংকর দখলবাজ চক্র গড়ে উঠেছে। প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী ও সম্মানী ব্যক্তিদের টার্গেট করে আদিবাসিদের ঢাল বানিয়ে অনৈতিক সুবিধা আদায় অন্যথায় জমি দখলের ভয়ংকর নাটক করেন তারা। অবৈধভাবে গড়ে ওঠা আদিবাসি স্কুলের প্রধান শিক্ষক শ্রী কানাই চন্দ্র কর্মকার জানান, জমিটির বন্দোবস্ত নেই তবে সাংবাদিক দিলুর সহযোগিতায় আমরা এই জমিতে স্কুল নির্মাণ করেছি। বন্দোবস্তের প্রক্রিয়া চলছে। বন্দোবস্ত না পেলে প্রথম আলো ট্রাস্ট জমি কিনে স্কুলটি স্থানান্তর করার ব্যবস্থা করবে। সে সময় আনোয়ার হোসেন দিলু, মাখন ও রাজশাহীর এক সাংবাদিক স্কুল সংলগ্ন প্রায় ৪ বিঘা জমিতে বাগান গড়ে তুলেছেন বলে জানান। এনিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জে সম্প্রতি দিলু-সেলিম চক্রের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ এনে স্থানীয় জেলা স্বাধীন প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন বিশিষ্ট শিল্পপতি টি. ইসলাম।

জানাগেছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিশিষ্ট শিল্পপতি ক্রয়কৃত জমি আদিবাসিদের ব্যবহার করে জবর দখলের পায়তারা করছেন দিলু-সেলিম চক্র। সদর উপজেলার আমনুরা টংপাড়ার কয়েকটি সংখ্যালঘু পরিবার ও স্থানীয় দাঙ্গাবাজদের অবৈধ দখলে ইন্ধন দিয়ে আসছেন আনোয়ার হোসেন দিলু ও সেলিম জাহাঙ্গীর। সম্প্রতি সেই শিল্পপতির জমিতে সাংবাদিক দিলুর ইন্ধনে সংখ্যালঘু পরিবার ও স্থানীয় দাঙ্গাবাজরা দখলের উদ্দেশ্যে নালিশি জমিতে টিন ও চাটাই দিয়ে কয়েকটি অস্থায়ী ঘর নির্মাণ করেন। রাতারাতি গড়ে ওঠা এই অস্থায়ী ঘর দেখে শহরের এক ব্যক্তি ঘর নির্মাণের কারণ জানতে চাইলে দখলদারেরা শারিরীকভাবে তাকে লাঞ্ছিত করে। এঘটনায় আহত ব্যক্তি বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় জি, আর ৩৩৬/১৭ নং একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার এজাহারভুক্ত প্রধান আসামী গোলাম নবীকে আটক করে থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃত আসামীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। তিনি জানান এই জমিটি দখল করতে পারলে সাংবাদিক দিলুর ৩ বিঘা, সেলিম জাহাঙ্গীরের ৩ বিঘা, আদিবাসি নেতা বঙ্গপালের ২ বিঘা সহ বিভিন্নভাবে ভাগবাটোয়ারা করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামী এ তথ্য দিয়েছেন বলে জানান তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই ইকবাল হোসেন।

 

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment