বাংলাদেশের ৫ আলোচিত-সমালোচিত ভিডিও স্ক্যান্ডাল

0

সেলিব্রেটিদের বিভিন্ন ভিডিও স্ক্যান্ডাল ছড়িয়ে পড়ার খবর পাওয়া যায় হামেশাই। এমন স্ক্যান্ডাল হলিউড-বলিউড-ঢালিউড সর্বত্রই চলেছে, চলছে। চেপে রাখতে চাইলেও এ থেকে রেহাই পাচ্ছেন না তারকারা। বাংলাদেশের মডেল অভিনেত্রী গায়িকা সেলিব্রিটিরাও এই অস্ত্রে ঘায়েল হয়েছেন। কোনো কোনো ক্ষেত্রে তারকারা ‘পাপ’ না করেও অপপ্রচারের বলি হয়েছেন, আবার অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় তারকরারা সেই অনৈতিক কাজটি সঙ্গোপনে করেও ফেলেছেন। বিশেষ করে সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকজন জনপ্রিয় মডেল অভিনেত্রী-গায়িকা ভিডিও স্ক্যান্ডালে জড়িয়ে পড়েন। একের পর এক প্রকাশ হওয়া এসব ভিডিও স্ক্যান্ডালের কারণে পুরো মিডিয়া অঙ্গনেই তুমুল সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়। এরকমই বাংলাদেশের ৫ আলোচিত-সমালোচিত ভিডিও স্ক্যান্ডাল কি কি দেখে নেওয়া যাক:

প্রভা

সময়টা ২০১০ সাল। জনপ্রিয় অভিনেত্রী সাদিয়া জাহান প্রভা তখন দেশের শীর্ষ মডেল ও অভিনেত্রী। ঠিক সেই সময়েই তার একটি ভিডিও ফুটেজ বাজারে ছাড়েন তার সেই সময়ের হবু বর রাজীব। মুহুর্তেই তা দেশ বিদেশে ছড়িয়ে পড়ে। রাজীব এবং প্রভার বিয়ে পারিবারিকভাবেই চুড়ান্ত হয়েছিলো। সব ঠিকঠাক চলছিল। তাই অনেকটা দাম্পত্য জীবনের মতোই ছিলও তাদের সম্পর্ক। কিন্তু এর মাঝে অভিনেতা অপূর্বর সাথে প্রভার মনদেয়া নেওয়া হলে প্রভা পালিয়ে অপূর্বকে বিয়ে করে বসেন। এরপরই প্রতিহিংসার বশে রাজীব তার হবু স্ত্রী প্রভার একান্ত সময়ের কিছু ফুটেজ ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়। প্রভার পক্ষ থেকে এমনটাই অভিযোগ করা হয়েছিল। এ নিয়ে তুমুল বির্তকে জড়িয়ে পড়েন প্রভা। অপূর্বর সাথেও সংসার ভেঙ্গে যায়। ক্যারিয়ারে ধস নামে। দীর্ঘ ২ বছর মিডিয়া থেকে আড়ালে ছিলেন তিনি।

চৈতি

প্রভার আপত্তিকর ভিডিও চিত্র প্রকাশ হওয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই পরের বছরই মডেল ও উপস্থাপিকা চৈতির একটি আপত্তিকর ভিডিও প্রকাশ হয়। পরিচালক এনামুল কবির নির্ঝরের সাথে এই ভিডিওতে আপত্তিকর অবস্থায় দেখা যায় চৈতিকে। ভিডিওটি মোবাইলে করা হয়েছিলো। এই আপত্তিকর ভিডিও প্রকাশের পরপরই তুমুল সমালোচনার মধ্যে পড়েন চৈতি। এ ঘটনা মিডিয়া সহ বিভিন্ন মহলেও বিষয়টি নিয়ে কড়া সমালোচনার সৃষ্টি হয়। এরপর অনেক দিন মিডিয়ায় দেখা যায়নি এই তারকাকে।

মিলা

জনপ্রিয় পপ শিল্পী মিলা’র ক্যারিয়ার শুরু হয় গানের মাধ্যমেই। পরে অবশ্য বেশ কয়েকটি বিজ্ঞাপনেও মডেলিং করেন এই পপ তারকা। কিন্তু ক্যারিয়ারের জনপ্রিয়তার তুঙ্গে থাকা অবস্থায় হঠাৎ করেই তার নাম চলে আসে ভিডিও স্ক্যান্ডালের তালিকায়। ইন্টারনেটে ‘মিলা’ নামে একটি আপত্তিকর ভিডিও প্রকাশ করা হয়। ৩৩ সেকেন্ডের ঐ ভিডিওটিতে মাতাল অবস্থায় থাকা তরুনীকে দেখা যায়। এ ঘটনার কয়েকমাস পর মিলা এ বিষয়ে মুখ খোলেন। তিনি দাবি করেন, প্রকাশিত ভিডিও চিত্রের মেয়েটি তিনি নন। এটি আসলেই মিলা কিনা তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন অনেকেই। তবে স্ক্যান্ডাল থেকে রক্ষা পাননি তিনি।

তিন্নি

ভিডিও স্ক্যান্ডালের সাথে জড়িয়ে পরে বাংলাদেশের জনপ্রিয় মডেল অভিনেতা তিন্নি-হিল্লোল জুটি। একটি হোটেল রুমে তরুন-তরুনীর অন্তরঙ্গ মুহুর্তের একটি ভিডিও ফুটেজ দুজনের নামে ছেড়ে দেওয়া হয় বাজারে। ভিডিওটির পাত্র-পাত্রী হিসেবে চলে আসে এ জুটির নাম। এই ভিডিওটির সত্যতা মেলেনি। কিন্তু সমালোচনার হাত থেকে রেহাই মেলেনি তুখোড় এই তারকা-জুটির। তিন্নিকে এখন শোবিজে দেখা যায় না বললেই চলে।

শখ

জনপ্রিয় মডেল আনিকা কবির শখের নামে একটি ভিডিও ফুটেজ বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করে ২০১১ সালের মাঝামাঝিতে। ভিওিও ক্লিপটি প্রকাশ হওয়ার সাথে সাথেই এটি নানাভাবে ছড়িয়ে পরে সবর্ত্র। ভিডিওতে বিবসনা মহিলাটি আসলেই শখ কিনা তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। তবে ফুটেজ ছড়িয়ে পড়ার পর শখের ক্যারিয়ার ইমেজে দর্শকদের কাছে নেতিবাচক মেসেজ পৌছায়।kolkata24x7

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ