চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে ভুয়া চিকিৎসকের অস্ত্রপাচারে স্কুল ছাত্রীর মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক: চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে জননী ক্লিনিকে ভূয়া চিকিৎসকের অস্ত্রোপাচারে নাহিদা (১৪) নামে এক স্কুল ছাত্রীর গত বুধবার মৃত্যূর ঘটনায় হত্যা মামলা হয়েছে। ৭ম শ্রেণিতে পড়–য়া ওই ছাত্রীর পিতা উপজেলার নেজামপুর ইউনিয়নের  জাহিদপুর  গ্রামের নাসির উদ্দিন বুধবার গভীর রাতে (২০জুলাই) নাচোল থানায় ৪১৯,৩০২ ও ৩৪ ধারায় মামলাটি দায়ের করেন। মামলার এজাহারে ভূয়া পরিচয় দিয়ে অস্ত্রোপাচারের নামে নরহত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে।

পুলিশ এ ঘটনায় অস্ত্রোপাচারকারী ভূয়া চিকিৎসক নওগাঁর বদলগাছি উপজেলার জগদীশপুর মৃধাপাড়ার আবু বক্করের ছেলে মাহফুজ রহমানকে (২৭) রাতেই গ্রেপ্তার করে বৃহস্পতিবার আদালতে পাঠিয়েছে। তাঁর পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে পুলিশ। ময়না তদন্তের জন্য নাহিদার মরদেহ বৃহস্পতিবার চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নাচোল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন জানান,গত সোমবার (১৭ জুলাই) নাহিদা পেটের সমস্যায় নাচোল জননী ক্লিনিকে ভর্তি হয়। ভুয়া চিকিৎসক মাহফুজ ( ডা. মাসুদ রানা পরিচয়ে) রোগীর এ্যাপেনডিসাইটিসে আক্রান্ত বলে অভিভাবকদের জানান। তিনি জানান, দ্রুত  অস্ত্রপাচার করা না হলে রোগী মারা যেতে পারে। এ অবস্থায় রোগীর পরিবারের অনুমতিতে তিনি রোগীর অস্ত্রপাচার করেন। পরদিন মঙ্গলবারও (১৮ জুলাই) রোগী প্রচন্ড জ্বর নিয়ে ওই ক্লিনিকে ভর্তি থাকে। গত বুধবার (১৯ জুলাই) আশংকাজনক অবস্থায় তাকে নাচোল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায় তার পরিবার।

সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা দ্রুত রোগিকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাবার পরামর্শ দেন। ছাত্রী নাহিদাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। বুধবার পুলিশ ক্লিনিকে গিয়ে মাহফুজ ওরফে ডা. মাসুদ রানার মেডিক্যাল সনদ পরীক্ষা করে সেগুলি জাল বলে নিশ্চিত হয়। মাহফুজ অন্যত্র কর্মরত মাসুদ রানা নামে অপর একজন চিকিৎসকের নাম ও পদবী ব্যবহার করে দীর্ঘদিন যাবৎ এই অপকর্ম করে আসছেন। ক্লিনিকটি এখন বন্ধ রয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি আনোয়ার। ঘটনার বিস্তারিত তদন্ত চলছে বলেও জানান তিনি।

Please follow and like us:

Related posts