চাঁপাইনবাবগঞ্জে চিকিৎসা না দিয়ে রোগী ফেরৎ পাঠানোর অভিযোগ

টুটুল রবিউলঃ রোগীকে চিকিৎসা না দিয়ে ফেরৎ পাঠানোর অভিযোগ উঠেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ইসমাইল হোসেনের বিরুদ্ধে। অভিযোগকারী আমিরুল মোমেনীন বাবু তার লিখিত বক্তব্যে বলেন- ১ আগষ্ট ভোর ৫-২৩ মিনিটে তার অসুস্থ ছেলেকে হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে তিনি জরুরী বিভাগের ডাক্তারের খোঁজ করলে দায়িত্বরত ব্রাদার রফিক তাকে জানান, রোগী না থাকায় ডাক্তার ইসমাইল বাসায় আছেন। ডাক্তার না থাকায় তিনি তার ছেলেকে নিয়ে বাসায় ফিরার পথে পথিমধ্যে ডাক্তার ইসমাইল হোসেনের সাথে দেখা হলে তিনি পুনরায় ছেলেকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন এবং তার ছেলের মাথা ব্যথা, জ¦র ইত্যাদি অসুস্থতার কথা বলে ডাক্তার ইসমাইলকে চিকিৎসা দিতে বলেন। ডাক্তার ইসমাইল হোসেন তখন বলেন- এটা জরুরী বিভাগের রোগী না, এই রোগীকে নিয়ে বহিঃবিভাগে নিয়ে যেতে বলেন।

আমিরুল মোমেনীন বাবু আরও বলেন- সারারাত ছেলের অসহ্য যন্ত্রণা আর চিকিৎসকের সেবা না পেয়ে তিনি মর্মাহত। তিনি জাতির কাছে প্রশ্ন রেখে বলেন- জনগণের করের টাকায় যে সকল চিকিৎসকের বেতন দেয়া হয় আর সেই চিকিৎসকের ব্যবহার যদি এমন হয়, তাহলে আমরা কার নিকট যাবো?

ডাক্তার ইসমাইলের হোসেনের বিরুদ্ধে রোগীদের সাথে দুর্ব্যবহারের কথা হরহামেশাই শোনা যায় বলে জানান আমিরুল মোমেনীন বাবু। গত বছর এই ডাক্তার বারোঘরিয়া মহিলা আওয়ামী লীগের নেত্রী আলোর সাথেও চিকিৎসার নামে খারাপ ব্যবহার করেছিলেন এবং এক রোগীর স্বজনের বিরুদ্ধে মামলা করে জেল ও খাটাইয়াছেন বলে জানান বাবু। ডাক্তারের এরুপ ব্যবহারে রোগীরা রুষ্ট হয়ে তার কাছে যান না বলেও জানান তিনি।

তিনি সচেতন মহল আর স¦াস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রীর নিকট প্রশ্ন রেখে বলেন- কি কারণে জরুরী বিভাগে ডাক্তার রাখা হয়, আর কিসের কারণে জরূরী বিভাগ রাখা হয়েছে?

Please follow and like us:

Related posts