চাঁপাইনবাবগঞ্জে “নবাব মৎস্য খামার প্রকল্প” পরিদর্শন করলেন মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ প্রতিমন্ত্রী

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি: চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে ভেড়ার খামার ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার নয়াগোলায় জেলার বৃহত্তম,আধুনিক পদ্ধতিতে ও বানিজ্যিকভাবে গড়ে তোলা “নবাব মৎস্য খামার প্রকল্প” পরিদর্শ করেছেন মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকায় নয়াগোলা বুলনপুরে ‘নবাব মৎস্য খামার প্রকল্প’ পরিদর্শন করেন তিনি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মাহমুদুল হাসান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুব আলম, জেলা আ’লীগ সহ-সভাপতি ও সাবেক সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রুহুল আমিন, ‘নবাব মৎস্য খামার প্রকল্প’ স্বত্বাধিকারী আকবর হোসেন, মৎস্য দপ্তরের রাজশাহী বিভাগের উপ-পরিচালক আব্দুল ওদুদ, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা শামছুল আলম, সদর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মাসুদ রানা প্রমূখ।

পরিদর্শনকালে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বপ্ন দেখেছিলেন ‘মাছে-ভাতে বাঙ্গালী’ শ্লোগানকে প্রতিষ্ঠা করার। বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্ন এখন বাস্তবে রুপ নিয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার চাহিদা মিটিয়ে উৎপন্ন মাছ এখন অন্য জেলায় সরবরাহ হচ্ছে। তিনি সরকারীভাবে এই প্রকল্পে সহায়তা এবং প্রকল্পের মাছ বিদেশে রপ্তানীতে সহযোগিতার আশ্বাস দেন। এর আগে বিকেলে মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার চকপুস্তুমে হাজী আব্দুল খাবিরের ভেড়া খামার পরিদর্শন করেন।

উল্লেখ্য, “নবাব মৎস্য খামার প্রকল্পে” প্রায় ৫০ একর জমির উপর ৩৬টি পুকুরে রয়েছে রুই, কাতলা, মৃগেল, সিলভার, ব্রিগেড, মাগুর, পাঙ্গাস, গুলসা মনসেক, পাবদা ও মনোসেক্স প্রজাতির মাছ। এসব পুকুরে প্রায় ২ হাজার মেট্রিক টন মাছ উৎপাদন প্রক্রিয়ায় রয়েছে। এখানে উৎপাদিত মাছ চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী, সিরাজগঞ্জ, বগুড়া ও ঢাকায় বিক্রি করা হয়। সরকারী সহায়তা পেলে এই প্রকল্পের মাছ বিদেশে রপ্তানীর পরিকল্পনা রয়েছে বলে কর্র্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

Please follow and like us:

Related posts