কেন্দুয়ায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষিকা পপি উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি !

0

নিজস্ব প্রতিবেদন : নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলার বলাইশিমুল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষিকা সুলতানা পারভিন পপি এখন নিজেকে তথা কথিত কেন্দুয়া উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি পরিচয় দিয়ে চলছেন। এক সঙ্গে সহকারী শিক্ষিকার পাশাপাশি সরকারী চাকুরী ও শৃংখলা বিধি উপেক্ষা করে মহিলা আওয়ালীগ কেন্দুয়া উপজেলা শাখার সাধারন সম্পাদক এবং আজকের ময়মনসিংহ পত্রিকার কেন্দুয়া প্রতিনিধি হিসাবে দায়িত্ব পালনের দাবিদার তিনি। বলাই শিমুল গ্রামের ছাত্র/ছাত্রী অভিভাবকরা অভিযোগ করে বলেন সহকারী শিক্ষিকা সুলতানা পারভিন পপি দিনের পর দিন বিদ্যালয়ে না এসে পাঠদান কার্যক্রমকে ফাকিঁ দিয়ে মাসের মাস সরকারী কোষাগার থেকে বেতন ভাতা উত্তোলন করে নিচ্ছেন। কিন্তু কর্তৃপক্ষ এসব দেখেও না দেখার বান করছেন। আব্দুল আওয়াল নামের এক ছাত্র অভিভাবক বলেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একজন সহকারী শিক্ষিকা কি করে পত্রিকায় লেখালেখি করে আবার উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি পরিচয় তথা মহিলা আওয়ালীগের সাধারন সম্পাদকের পরিচয় দিয়ে স্কুল ফাঁকির মাধ্যমে দিপযাপন করছেন, তা মানুষকে দিনদিন ভাবিয়ে তুলছেন। তিনি বলেন এবিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, উপ-পরিচালক জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। এ বিষয়ে জরুরী তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের জন্যও জোর দাবি জানান তিনি। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা তাদের প্রতিক্রিয়া ব্যর্থ করে বলেন এবিষয়ে লিখিত অভিযোগ ফেলে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহন করব। এদিকে সুলতানা পারভিন পপির সঙ্গে বার বার যোগাযোগের চেষ্ঠা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ