সাংবাদিকদের হেয়প্রতিপন্ন করার অধিকার অর্থমন্ত্রীকে কে দিল?

0

এম আরমান খান জয়, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

সকল পেশাজীবীর মধ্যে সাংবাদিকরাই সবচেয়ে বেশী নির্যাতিত, হত্যা, হামলা, নির্যাতন, গ্রেফতার, অহেতুক মামলা ও ভয়াবহ ৫৭ ধারার শিকার। আর এখন অর্থমন্ত্রী যে ভাষায় সাংবাদিকদের হেয়প্রতিপন্ন করে আশালীন বক্তব্য দিয়েছেন তাতে পেশায় সম্মান লাভের অধিকারটুকুও যেন আজ তারা হারাতে বসেছেন।

নিত্যদিন জনগণের দুঃখ-দুর্দশা তুলে ধরা সাংবাদিকরা এবার নিজেদের দুঃখের খবর কোথায় ছাপাবেন? দীর্ঘদিন ধরেই সাংবাদিকরা নবম ওয়েজবোর্ড গঠনের দাবি জানিয়ে আসছেন। কারণ, অষ্টম ওয়েজবোর্ড রোয়েদাদ ঘোষণার পর প্রায় পাঁচ বছর অতিক্রান্ত হতে চলেছে। অথচ পাঁচ বছরে সবকিছুরই দাম বেড়েছে। সরকারি কর্মচারীদের বেতন-ভাতা ১২০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে। ব্যতিক্রম শুধু সাংবাদিকদের ক্ষেত্রে।

তাই সাংবাদিকরা সরকারের কাছে যদি নবম ওয়েজবোর্ড গঠনের দাবি জানিয়ে থাকে, তার প্রতিত্তুরে পুরো সাংবাদিক সমাজকে এভাবে দেশের মানুষের সামনে তুচ্ছ তাচ্ছল্য করে কটাক্ষ করার অধিকার সরকারের একজন সিনিয়র মন্ত্রীকে কে দিলো?

দুঃখজনক বিষয় হচ্ছে- এদেশে এখনও একজন শ্রমিক যে আইনে বিচার চায়, ঠিক একই আইনে একজন সাংবাদিককেও বিচার চাইতে হয়। একজন সাংবাদিকের পেশা একজন শ্রমিকের চেয়ে বেশী কিছু নয়।

ভুলে গেলে চলবে না, গণমাধ্যমের অধিকার হীনতা জনগণের বাকস্বাধীনতা হীনতারই নামান্তর।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ