আজ বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহি হামিদুর রহমানের শাহাদতবার্ষিকী

১৯৭১ সালের ২৮ অক্টোবর এ দিনে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার ধলাই সীমান্তে হানাদারদের একটি ব্যাংকারে গ্রেনেড হামলা চালিয়ে ফেরার পথে পাক সেনাদের ছোড়া গুলিতে শহীদ হয়েছিলেন বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহি হামিদুর রহমান। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) আজ ধলই সীমান্তের স্মৃতিসৌধ এলাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করবে বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহি হামিদুর রহমান আর্কাইভ।

ইতঃপূর্বে ধলই সীমান্ত ফাঁড়ির বিজিবির পক্ষে স্থানীয়ভাবে একটি নামফলক স্থাপন করে সীমান্ত ফাঁড়ির সামনে। ২০০৫ সালে তৎকালীন বিএনপি সরকারের অর্থ ও পরিকল্পনামন্ত্রী মরহুম এম সাইফুর রহমান ধলাই সীমান্ত এলাকায় বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহি হামিদুর রহমানের স্মৃতি সৌধের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলন। সে সময় স্থানীয় সাংবাদিকদের লিখিত আবেদনে ও এলাকাবাসীর দাবিতে মন্ত্রী এম সাইফুর রহমানের উদ্যোগে বিএনপি সরকার ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের আমবাসা গ্রাম থেকে হামিদুর রহমানের লাশ বাংলাদেশে এনে মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে সমাহিত করে।

দীর্ঘ ছয় মাসে একটি পূর্ণাঙ্গ স্মৃতিসৌধ নির্মাণকাজও শেষে আবার এম সাইফুর রহমান তা উদ্বোধন করেছিলেন।  বিজিবি ৪৬ নম্বর ব্যাটালিয়নের মেজর ইকবাল জানান, ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকীতে বিজিবি ৪৬ নম্বর ব্যাটালিয়নের পক্ষে সকালে স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবে। দুপুরে কাঙ্গালি ভোজ পরিবেশন করা হবে। বেলা ৩টায় বিজিবি শ্রীমঙ্গল সেক্টর কমান্ডার আনুষ্ঠানিকভাবে ‘বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহি হামিদুর রহমান আর্কাইভ’ উদ্বোধন করবেন। পরে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া কমলগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিল, ও সাংবাদিকদের পক্ষে বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহি হামিদুর রহমানের স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে।

Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment