টি ইসলামের বিরুদ্ধে আদিবাসীদের আরও একটি মামলা খারিজ

ফারুক আহমেদ চৌধুরী : বিশিষ্ট শিল্পপতি তরিকুল ইসলাম (টি ইসলাম) সহ অন্যান্য আসামিদের নামে দায়ের করা সি. আর – ৪২৭/২০১৭ নং মামলাটি খারিজ করে দিয়েছেন আদালত। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার আমনুরার  আদিবাসী শ্রী মতি কমেলা রানীর দায়ের করা মামলাটি পুলিশ তদন্তে মিথ্যা প্রমাণীত হয়। সার্বিক পর্যালোচনা ও পুলিশ তদন্তের ভিক্তিতে আদালত মামলটি খারিজ করে দেন।

গত ৫ই নভেম্বর চাঁপাইনবাবগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলি আদালত “ক” অঞ্চলের বিচারক মোঃ শরিফুল ইসলাম পুলিশের তদন্ত রিপোর্ট পর্যালোচনা করে এই আদেশ প্রদান করেন। এর আগে সদর মডেল থানার  পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) আতিকুল ইসলাম গত ৩১ আগস্ট মামলাটি সরেজমিন তদন্ত করে আসামীদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ ও সাক্ষীদের জিজ্ঞাসাবাদে প্রমাণ পাওয়া যায়নি মর্মে আদালতে একটি প্রতিবেদন দাখিল করেন।
মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, আমনুরার আদিবাসী সম্প্রদায়ের শ্রী বাসুদেবের স্ত্রী শ্রী মতি কমেলা রানী বাদী হয়ে নামোশংকরবাটি গ্রামের মৃত তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে শিল্পপতি তরিকুল ইসলামসহ তিনজনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামা আরও ১৪০/১৫০ জনের বিরুদ্ধে আদালতে লুটপাঠ, মারপিট ও জমি দখলের অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করেন। পরে মামলাটি তদন্তের জন্য সদর মডেল থানা পুলিশকে নির্দেশ দেন আদালত । পুলিশ দীর্ঘ তদন্ত শেষে মামলাটির বর্ণনা সত্য নয় বলে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা তৎকালিন পুলিশ পরিদর্শক ( অপারেশন)  মোঃ আতিকুল ইসলাম সাক্ষরিত তদন্ত প্রতিবেদনে উল্ল্যেখ করা হয়েছে, অত্র চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানাধীন আমনুরা টংপাড়া গ্রামের বাদী ও সাক্ষীগনের বাড়িতে বাদীর আরজী বর্ণিত দঃ বিঃ আইনের ১৪৮/৪৪৭/৪৪৮/৩২৩/৩৮০/৩৫৪/৪২৭/৩০৭/১১৪ ধারা অপরাধের প্রাথমিকভাবে  সত্যতা পাওয়া যাই নাই। বাদী ০১নং বিবাদীসহ অন্যান্য বিবাদীকে হয়রানী এবং বর্ণিত সম্পত্তি অবৈধভাবে ভোগদখল করার জন্য বিজ্ঞ আদালতে মিথ্যা মামলা দায়ের করেন।

বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ শরিফুল ইসলাম সাক্ষরিত  সুপ্রীম কোর্ট ( হাইকোর্ট বিভাগ ) ক্রিমিনাল ফরম নং ( এম)  ১০৬ এর আদেশ নামার শেষ অংশে উল্ল্যেখ করা হয়েছে, সার্বিক পর্যালোচনায় নারাজী দরখাস্তের কোন সারসত্তা নাই এবং তদন্তকারী কর্মকর্তা সঠিক ভাবে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করেছেন মর্মে প্রতীয়মান হয়। বিধায় নারাজী দরখাস্তটি নামঞ্জুর  করা হল । দাখিলকৃত তদন্ত প্রতিবেদন গৃহিত হলো । মামলাটি ফৌজদারী কার্যবিধির ২০৩ ধারা মতে খারিজ করা হলো।


Please follow and like us:

Related posts

Leave a Comment