ময়মনসিংহে এস আই মলয় চক্রবর্তীর বিলাসবহুল বাড়ী

1

নিজস্ব প্রতিবেদক: ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা সংস্থার (ডিবি) এর সাব ইন্সপেক্টর মলয় কুমার চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনসহ ক্ষমতার অপব্যবহার ও রহস্যভূত অস্ত্র উদ্ধার ও অস্ত্র সামারীর বহু অভিযোগ পাওয়া গেছে। সূত্র জানায়, ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা সংস্থায় ধাপে ধাপে প্রায় ৫ বছর সময় কাটিয়েছেন। এ সময় তিনি বিভিন্ন লোকজনদের আটক করে ডিবির খুপরী হাজতে ৩/৪ দিন করে আটক রেখে অর্থ বাণিজ্য করেছেন।

মাদক ব্যবসায়ী, অস্ত্রবাজ, মোটর সাইকেল চোর সেন্ডিকেট, গাড়ীচোর ও ভূমি দস্যুর সাথে রয়েছে তার রমরমা খাতির। তিনি নিজেকে সব সময় এক পুলিশ কর্মকর্তার স্বজন দাবী করেন। আর কোন আসামী ধরেই তিনি বলেন স্যার ধরতে বলেছে।

এতে সামারীর বাণিজ্য বেড়ে যায়। এমন মিথ্যা আচারণের কথায় ধৃতের স্বজনরা যেমনি আতংকিত হয় তেমনি ঘুষের অংকটা বেড়ে যায়। ফলে তিনি ময়মনসিংহের ডিবিতে চাকুরী করে মাত্র প্রায় ৫  বছরে ৪ কোটি টাকা কামিয়ে নিয়েছেন।

তার কাছে এখনো বেশ কয়েকটি চোরাই উদ্ধারকৃত ৭/৮টি সিএনজি রয়েছে। অভিযোগ রয়েছে, উদ্ধারকৃত বেশ কয়েকটি মোটর সাইকেল ডিবি অফিসে রেখেও তিনি বিক্রি করে দিয়েছেন। এসআই মলয় কুমার চক্রবর্ত্তী সাথে হালুয়াঘাটের বিশাল চোরাচালান সেন্ডিকেট, অস্ত্র ব্যবসায়ী, মধুপুরের মোটর সাইকেল চোর সেন্ডিকেট, বাঘার চোর সেন্ডিকেট, ভালুকার  শিল্পপতি মাখনের কাছ থেকে প্রায় ৩ কোটি টাকা নিয়েছেন।

এ সকল টাকা ধাপে ধাপে নেয়া হয়। বিভিন্ন এলাকায় মলয় কুমার চক্রবতীকে মলয় ডাকাত বলে সম্বোধন করে বলে প্রচার আছে।
মলয় কুমার চক্রবর্তী কনস্টেবল থেকে ০- এসআই। বিভিন্ন কর্মস্থল থেকে কোন না কোন অভিযোগেই তার ভিন্ন স্থানে পোষ্টিং হয়েছে। তিনি ত্রিশাল থানায় কর্মরত থাকার সময়ে মলয় ডাকাত পরিচিতি লাভ করেছিল। বিভিন্ন অস্ত্র উদ্ধার ঘটনা ছিল তার সুনাম অর্জনের ফিটিং মামলা।

ময়মনসিংহের ডিবিতেও তিনি এমন বহু নাটকীয় ঘটনা করেছেন। তার প্রতিটি মামলাই রহস্যভূত। পুলিশের মাঝেও প্রচার আছে ফিটিং দারোগা মলয় কুমার চক্রবর্তী। মলয় চক্রবর্তীর বাড়ি নেত্রকোনা আটপাড়া উপজেলায়। পারিবারিক অবস্থা ভালো ছিল না।

তাদেরকে এলাকা থেকে বিতাড়িত করা হয় বলে অনেকেই জানান। মলয়ের  চাকুরীর সুবাধে এখন তারা বিত্তশালী। পরিবারের সবাই থাকেন ময়মনসিংহে। পুলিশ ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে এ শহরে র‌্যালীর মোড়ে বহুতল ভবনের মালিক। আরো বহু অর্থ-সম্পদ তার স্ত্রী সন্তানদের নামে রেখেছেন। তার এক ভাই পুলিশে চাকুরী করে। মলয়কে তার সহকর্মীরা সহ্য করতে পারে না। সবাই ঘৃণাভরে সমালোচনা করে।


আরও খবর:  চাঁপাইনবাবগঞ্জে বেপরোয়া হুন্ডি ব্যবসা কোটি টাকা রাজস্ব বঞ্চিত সরকার

আরও খবর:  চাঁপাইনবাবগঞ্জের এসপি কে বদলীর চেষ্টায় মরিয়া মাফিয়া চক্র


তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
1 টি মন্তব্য
  1. […] […]

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ