‘নির্বাচন ঠেকাতে পুলিশকে ক্ষমতাবান করা হয়েছে’


Add
Add

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রকে কঙ্কালে পরিণত করেছে। গণতন্ত্রশূন্য দেশে প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচনকে আটকিয়ে রাখতেই পুলিশকে ক্ষমতাবান করা হয়েছে।

মঙ্গলবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে রুহুল কবির রিজভী এ অভিযোগ করেন।

রিজভী বলেন, এটি কোনো বিচ্ছিন্ন নৃশংসতা নয়, ৮ ফেব্রুয়ারিতে সরকারপ্রধানের ইচ্ছা পূরণ করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ‘বেপরোয়া উন্মত্ততায়’ বিএনপির ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ছে। সরকার মনে হয় রায় নির্ধারণ করে রেখেছে। আর এ জন্যই এর প্রতিক্রিয়ার অজানা ‘আতঙ্কে’ বিএনপি নেতা-কর্মীদের ওপর বুলডোজার চালাচ্ছে।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ওপর ভর করে সরকার তার স্বৈরাচারী গণতন্ত্রবিনাশী ইচ্ছা পূরণ করছে। সরকার রাষ্ট্রীয় শক্তিকে আয়ত্তে নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা, সমাবেশ এবং ঘরোয়া বৈঠক, এমনকি ধর্মীয় অনুষ্ঠানকে সন্ত্রাসী তাণ্ডবে স্তব্ধ করে দিচ্ছে।

তিনি বলেন, অদক্ষতা, অযোগ্যতা ও অহংকারে বছরের পর বছর দেশে আর্থসামাজিক, রাজনৈতিক, প্রশাসনিক এবং বিচারিক নানামুখী সংকট সৃষ্টি হচ্ছে। এই সংকট সৃষ্টির জন্য ষোলো আনা দায়ী সরকার ও সরকারপ্রধান।

সোমবার বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সিলেট সফর বিষয়ে রুহুল কবির রিজভী বলেন, দলের চেয়ারপারসন হজরত শাহজালাল (র.)-এর মাজার জিয়ারতের জন্য সিলেটে যান। এটি ছিল তাঁর সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত সফর। তিনি বলেন, দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী খালেদা জিয়া দেশের যে জেলাতেই যান না কেন, পথিমধ্যে হাজার হাজার মানুষ তাঁকে অভ্যর্থনা জানানোর জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে, এটাই স্বাভাবিক।

কিন্তু তাঁর সিলেট যাওয়ার পথে অভ্যর্থনা জানাতে অপেক্ষমাণ বিএনপি নেতা-কর্মী ও সাধারণ মানুষের ওপর আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও সরকারদলীয় অঙ্গ-সংগঠনের যৌথ আক্রমণে এক বিভীষিকাময় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

বিএনপি নেতা রিজভী অভিযোগ করেন, সরকারি বাহিনীগুলোর আক্রমণে বিএনপি নেতা-কর্মীদের ক্ষতবিক্ষত করা হয়, মৃত্যুভয়ে ‘ঊর্ধ্বশ্বাসে’ কেউ পালিয়ে বাঁচার চেষ্টা করলে তাকে টেনেহিঁচড়ে আটক করে পুলিশ ভ্যানে তোলা হয়। হবিগঞ্জে খালেদা জিয়াকে অভ্যর্থনা জানানোর জন্য নেতা-কর্মীরা একটি ছোট মঞ্চের ওপর দাঁড়িয়ে থাকলে পুলিশ অতর্কিতে হামলা চালিয়ে মঞ্চ ভেঙে দিয়ে নেতা-কর্মীদের বেধড়ক মারপিট করে। তিনি বলেন, বাংলাদেশকে একটি আদর্শ পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত করতে বর্তমান শাসকগোষ্ঠী সক্ষম হয়েছে। এখানে ক্ষমতাসীন নেতা-মন্ত্রী ও সরকারি বাহিনীগুলোর কোনো রীতিনীতি নেই, আইন নেই। শুধু একজন ব্যক্তিকে খুশি রাখতে সবকিছুতেই তাদের বাড়াবাড়ি ও অতি উৎসাহ।

এ সময় রুহুল কবির রিজভী বলেন, গণতন্ত্র আদায়ের আপসহীন কান্ডারি খালেদা জিয়াকে ধ্বংস করা যাবে না।

৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়কে ঘিরে সারা দেশে ১ হাজার ১০০ জনেরও বেশি নেতা-কর্মীকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে বলে রিজভী জানান।

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিব-উন নবী খান সোহেল, শাহবাগ থানা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি ইকবাল হাসান, মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সুন্দর বকস, বগুড়া সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম শাহীনসহ সারা দেশে বিএনপির অনেক গুরুত্বপূর্ণ নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে রিজভী জানান।


 

Add
ক্রাইম নিউজ ২৪ এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।
ব্রেকিং নিউজঃ
ব্রেকিং নিউজঃ