কোহলিকে বুঝে–শুনে ‘খেপতে’ বললেন স্টিভ ওয়াহ

0

বিরাট কোহলির অধিনায়কত্বে আগ্রাসী ব্যাপারটা যতই ভালো লাগুক, তাতে লাগাম টানতে বলছেন সাবেক অস্ট্রেলীয় অধিনায়ক স্টিভ ওয়াহ। তাঁর মতে, দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে কোহলি আগ্রাসনে একটু বাড়াবাড়িই করে ফেলেছেন। তবে এই আগ্রাসী আচরণকে ভারতের একজন কারিশমা-সম্পন্ন অধিনায়ক হিসেবে গড়ে ওঠার অংশই মনে করেন অস্ট্রেলিয়াকে ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপ জেতানো এ অধিনায়ক। 
দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে কোহলির আগ্রাসী মনোভাবটা ‘বাড়াবাড়ি’ কেন, সেটার একটা ব্যাখ্যা দিয়েছেন ওয়াহ, ‘আমি দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে কোহলিকে দেখেছি, কিন্তু আমার কাছে মনে হয়েছে, আগ্রাসী হতে গিয়ে সে একটু বাড়াবাড়িই করে ফেলেছে। তবে এটা অবশ্যই অধিনায়কের জন্য শিক্ষার বিষয়। তবে এ ব্যাপারে তাঁর একটা ভারসাম্য বজায় রাখা উচিত। কারণ, ভারতীয় দলের সব খেলোয়াড়ই তো তার মতো আগ্রাসী নয়।’ 
অধিনায়ক হিসেবে নিজের আবেগ নিয়ন্ত্রণই কোহলির সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ বলে মনে করেন ওয়াহ, ‘অধিনায়ক হিসেবে কোহলি এখনো শিখছে। তার এখন আবেগ ও উত্তেজনায় একটু রাশ টানা দরকার। তার একটা বিষয় একটু খেয়াল রাখা দরকার যে দলের সব খেলোয়াড়ই তার মতো করে খেলে না। অজিঙ্কা রাহানে হতে পারে এর একটা উদাহরণ। রাহানে, পূজারাদের মতো ক্রিকেটাররা খুব ধীর-স্থির ও শান্ত। তাঁকে বুঝতে হবে, একেকজন খেলোয়াড় একেক রকম।’ 
কোহলির করণীয়টা খুব সহজ বলেই মনে করেন ওয়াহ, ‘মাঝেমধ্যে তাঁর আগ্রাসনের মাত্রাটা একটু কমানো হবে, মাঝেমধ্যে বাড়াতে হবে। সুতরাং তাঁকে বুঝতে হবে, কাজ করে যেতে হবে, কোনটা কখন কাজে দেয়।’ 
কোহলির প্রতি নিজের শ্রদ্ধাটা যে শতভাগ, সেটা কিন্তু বলতে ভোলেননি অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে সফল অধিনায়কদের একজন, ‘সে দুর্দান্ত নেতৃত্ব দিচ্ছে দলকে। একজন সফল অধিনায়ক হওয়ার কারিশমা ও গুণাবলি সবই তাঁর আছে। সে সব সময়ই চায় ভারতীয় দল ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে খেলুক। সে যতটা ইতিবাচক, গোটা দলের কাছেই সে ঠিক সে ধরনের ইতিবাচকতাই চায়।’

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

ব্রেকিং নিউজঃ