তদন্ত সংস্থাকে পাত্তাই দিলেন না ‘ডায়মন্ড কিং’

0

পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকের (পিএনবি) ১২ হাজার ৬২২ কোটি রুপির আর্থিক জালিয়াতির মামলায় তদন্তে যোগ দিতে অস্বীকার করেছেন নীরব মোদি। ভারত থেকে পালিয়ে তিনি এখন কোন দেশে অবস্থান করছেন, এ বিষয়ে নিশ্চিত নয় ভারতের তদন্ত সংস্থা।

বিদেশে বসেই এক ই-মেইলে সিবিআইকে তিনি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, ‘ব্যবসার কাজে ব্যস্ত। দেশে ফেরা সম্ভব নয়।’

সিবিআই কর্তারা জানিয়েছেন, অফিশিয়ালি নীরবের সঙ্গে তাঁদের ই-মেইলে যোগাযোগ হয়েছে। ই-মেইলেই তিনি জানিয়েছেন দেশে ফিরতে পারবেন না। পরে নীরবকে পাল্টা ই-মেইল বার্তায় সিবিআই বলেছে, ‘এক সপ্তাহের মধ্যে হাজির হওয়াটা বাধ্যতামূলক। না হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ তিনি যে দেশে আছেন, সেই দেশের ভারতীয় দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ করতেও বলেছে সিবিআই।

তবে নীরবকে ধরতে না পারলেও ওই জালিয়াতি মামলায় পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকের প্রধান নিরীক্ষক এম কে শর্মাকে গ্রেপ্তার করেছে সিবিআই। সিবিআই জানিয়েছে, পিএনবির ব্র্যাডি হাউস শাখায় অডিটের দায়িত্বে ছিলেন শর্মা।

ভারতের ‘ডায়মন্ড কিং’ নামের নীরব মোদি গুজরাটের মানুষ। এই জুয়েলারি ব্যবসায়ী ফোর্বস সাময়িকীর তালিকায় ২০১৬ সালে ভারতের অন্যতম ধনকুবের ছিলেন। পরের বছর ধনকুবেরদের বিশ্ব তালিকায় তাঁর স্থান হয় ১ হাজার ২৩৪তম-তে। ৪৭ বছর বয়সী ব্যবসায়ী নীরব মুম্বাইয়ে পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকের একটি শাখা থেকে ভুয়া কাগজপত্রের মাধ্যমে ১১ হাজার ২০০ কোটি রুপি ঋণ নিয়েছেন। পরে জানা যায়, ওই অর্থের পরিমাণ ১২ হাজার ৬২২ কোটি রুপির বেশি। চলতি বছরের প্রথম দিনেই বিদেশ পালিয়ে গেছেন তিনি। এক সপ্তাহের মধ্যে তাঁর স্ত্রী-ভাই ও ব্যবসার গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তারা দেশ ছাড়েন। ইতিমধ্যে নীরবসহ তাঁর ঘনিষ্ঠদের পাসপোর্ট বাজেয়াপ্ত করেছে ভারত সরকার।

 

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ