চাঁপাইনবাবগঞ্জ ছাত্রলীগের নতুন কমিটির দৌড়ে এগিয়ে সাংগঠনিক সম্পাদক মারুফ আহমেদ শাওন

0

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি : উপজেলা থেকে শুরু করে কেন্দ্র পর্যন্ত যোগাযোগ অব্যহত রেখেছেন একাধীক প্রার্থী।  তাদের মধ্যে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি পদে অন্যতম আলোচনার শীর্ষে রয়েছে বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদক মেধাবী ছাত্র মারুফ আহমেদ শাওন। 

মেধাবী এই ছাত্র নেতাকে ২০১৫ সালের ১৯ মে তিন জনের সুপার কমিটি ঘোষণা করা হয়।  সেখানেই তৎকালিন সভাপতি ও সম্পাদক মারুফ আহমেদ শাওন কে সাংগঠনিক সম্পাদকের পদ দেয়া হয়।  যা তিনি অত্যান্ত নিষ্টার সঙ্গে পালন করে আসছেন। 

তিনি বলেন, আমার বাবা ছাত্রজীবনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের আমীর আলী হল শাখায় সক্রিয় রাজনীতির সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত ছিলেন এবং বর্তমানে তিনি ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের একজন প্রাথমিক সদস্য।  বাবার অনুপ্রেরণায় ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ধারণ করে ২০০৭ সালে রাজনীতিতে সক্রিয়ভাবে অংশ গ্রহন করি। 

পরবর্তীতে সাবেক সদস্য বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখা, (সময়কাল: ২০১১ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত, দায়িত্বরত ছিলাম)
২০০৭ সাল হতে বর্তমান সময় পর্যন্ত বাংলাদেশ ছাত্রলীগ চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর শাখা, নবাবগঞ্জ সরকারী কলেজ শাখাসহ জেলাএছাত্রলীগের সকল রাজনৈতিক কর্মকান্ডে অগ্রণী ভূমিকা পালন। 

২০০৮ সালে ডিসেম্বর মাসে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এর মনোনিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর বিজয়ের জন্য অগ্রনী ভূমিকা পালন। 

২০০৯ সালের জানুয়ারী মাসে উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনিত উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিজয়ের জন্য কাজ করা। 

২০১১ সালে জানুয়ারী মাসে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থীর জন্য মাঠ পর্যায়ে কাজ করা

২০১১ সালের ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর পক্ষে সক্রিয়ভাবে কাজ করা। 

২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ সালে জামায়াত নেতা দেলোয়ার হোসাইন সাঈদী যুদ্ধাপরাধীর রায়ে জামায়ত শিবীরের তান্ডব প্রতিরোধে তৎকালীন জেলা ছাত্রলীগের নেতৃত্বে অগ্রনী ভূমিকা পালন।  নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ থেকে শিবির মুক্ত ক্যাম্পাস গড়তে সক্রিয় অংশগ্রহন। 

২০১৩ সালে ৩রা অক্টোবর ২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারি নির্বাচনের পূর্বে আমার বাড়িতে শিবির হামলা চালায়।  এতে আমি আহত হই। 

৫ই জানুয়ারি ২০১৪ নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াতের তান্ডব প্রতিরোধে সক্রিয় অংশগ্রহনে আমি আহত হই,সকলেরই জানা । 

২০১৪ সালের উপজেলা নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থীর পক্ষে ভোট চাওয়া ও সক্রিয় অংশ গ্রহণ। 

২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর পৌরসভা নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর পক্ষে সক্রিয়ভাবে মাঠ পর্যায়ে কাজ করা। 

২০১৬ সালের ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর পক্ষে সক্রিয়ভাবে কাজ করা। 

তাঁর দাবি-শততা নিষ্ঠার সঙ্গে দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করায় বাংলাদেশ ছাত্র লীগের তৃণমূল থেকে শুরু করে কেন্দ্র পর্যন্ত সকলের কাছেই একটি পরিচ্ছন্ন নাম শাওন।  যা জেলার আওয়ামী লীগসহ অঙ্গ সংগঠনগুলোর প্রতিটা নেতা কর্মী জানে।  ফলে সকলেই চাচ্ছে আমি সভাপতির নের্তৃত্বে আসি।  সকলের চাওয়া থেকেই আমার প্রার্থী হওয়া।  বর্তমানে নবাবগঞ্জ সরকারী কলেজের হিসাববিজ্ঞানের মাষ্টার্স ডিগ্রী (ফাইনাল) এর ছাত্র মারুফ আহমেদ শাওন। 

আশা প্রকাশ করে বলেন, আমার প্রাণের সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্র লীগের কেন্দ্র কমিটি আমাকে সভাপতি মনোনিত করে ঐতিহ্যবাহি সংগঠনটির মর্যাদা অক্ষুন্ন রাখবে এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ছাত্র লীগের কার্যক্রম আরও বেগবান হবে। 

প্রসঙ্গত, সর্বশেষ ২০১৫ সালের ১৯ মে সাকিউল ইসলাম সাকিলকে সভাপতি, ইমন রেজাকে সাধারণ সম্পাদক ও মারুফ আহমেদ শাওন সাংগঠনিক সম্পাদক করে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সুপার কমিটি গঠিত হয়। 

কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ায় গত বছরের ১২ ডিসেম্বর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলনের সকল প্রস্ততির পর তা স্থগিত করা হয়।  সভাপতি নির্বাচিত হলে তার করণীয় কি হবে জানতে চাইলে বলেন, অতিদ্রুত চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের পরিশ্রমী, ত্যাগী ও নিয়মিত ছাত্রদের দিয়ে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন সহ সকল ইউনিট এর নেতৃত্ব পুর্ণগঠনের মাধ্যমে জামাত-শিবিরের নাশকতা প্রতিহত করার উপযোগী সংগঠন হিসেবে গড়ে তোলা। 

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগকে একটি তথ্য ও প্রযুক্তি নির্ভর ইউনিট গড়ে তোলার ক্ষেত্রে সামাজিক ওয়েবসাইটে একটি পেইজ খোলা ও ফেসবুক আইডি খোলা যার মাধ্যমে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ কর্তৃক প্রদত্ত কর্মসূচীর নির্দেশনাসহ জেলা ছাত্রলীগের কর্মসূচীর সকল স্তরের নেতাকর্মীদের কাছে সহজে পৌঁছে দেওয়া যাবে। 

জেলা ছাত্রলীগের সকল সদস্যদের একটি প্রাথমিক সদস্য ফরম পূরনের মাধ্যমে নিবন্ধনের আওতায় আনাসহ সকল ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর একটি “ডেটাবেজ” তৈরি করা।  উক্ত “ডেটাবেজ” এর মাধ্যমে ছাত্রলীগের নাম ভাঙ্গিয়ে যেসকল অসাধু কর্মকান্ড ঘটে তা প্রতিহত করা সহজতর হবে এবং যেকোন কর্মকান্ডে ছাত্রলীগের সম্পৃক্ততা সম্পর্কে মিডিয়ার দোষারোপকেও প্রতিহত করা যাবে। 

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মরণে শোকাবহ আগস্ট মাসে প্রতি বছর স্কুল-কলেজ পর্যায়ে বিতর্ক প্রতিযোগিতা, রচনা প্রতিযোগিতাসহ বিভিন্ন কর্মসূচীর মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে পরবর্তী প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দেওয়াসহ নানান উদ্যোগ নেয়া হবে। 

বর্তমানে চাঁপাইনবাবগঞ্জের সব শ্রেনীর নেতাসহ কর্মীদের পর্যন্ত সকলের প্রানের চাওয়া এবং দাবি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি পদে মেধাবী ছাত্র মারুফ আহমেদ শাওন যেন র্নিবাচিত হয়। 

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ