চ্যাম্পিয়নস লিগে শেষ ম্যাচ খেললেন ক্যাসিয়াস?

0
  • পোর্তোর সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে শেষ আটে লিভারপুল।
  • চ্যাম্পিয়নস লিগে সম্ভবত শেষ ম্যাচ খেলে ফেললেন পোর্তো গোলরক্ষক ক্যাসিয়াস।
  • চ্যাম্পিয়নস লিগে সর্বোচ্চ ম্যাচ খেলার রেকর্ড ক্যাসিয়াসের।
  • আসরটিতে সর্বোচ্চসংখ্যক ম্যাচে ‘ক্লিন শিট’ রাখার রেকর্ডও ক্যাসিয়াসের।

এস্তাদিও দ্রাগাওয়ে প্রথম লেগেই লিভারপুল লিখে ফেলেছিল ম্যাচের ভাগ্য। পোর্তোর ঘরে ঢুকে ৫-০ গোলের জয়! কাল রাতের ফিরতি লেগে তাই গোলশূন্য ড্র করলেও ২০০৯ সালের পর প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ আটে পৌঁছেছে লিভারপুল। অ্যানফিল্ডে তাই এখন উৎসবের আবহ, কিন্তু প্রতিপক্ষ শিবিরে একজনের মনে বাজছে বিদায় রাগিণী!

ইকার ক্যাসিয়াস। রিয়ালের ‘ঘরের ছেলে’ তিন বছর আগেই যোগ দিয়েছেন পর্তুগিজ ক্লাবটিতে। একসময় স্পেনের ‘সেইন্ট’ (ত্রাতা) হিসেবে ডাকা হতো তাঁকে। যুব ক্যারিয়ার হিসেবে আনলে রিয়ালেই ২৫ বছর কেটেছে তাঁর। পোর্তোয় যাওয়ার পর কজন তাঁর খোঁজ রেখেছে? সর্বকালের অন্যতম সেরা গোলরক্ষকটি তাই অনেকটা নিভৃতেই খেলে ফেললেন আরও একটি চ্যাম্পিয়নস লিগ। সম্ভবত চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ম্যাচটিও!

মৌসুম শেষেই ৩৬ বছর বয়সী ক্যাসিয়াসকে ছেড়ে দেবে পোর্তো। এ মৌসুম দিয়েই পোর্তোর সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ ফুরোবে বিশ্বকাপ ও ইউরোজয়ী ক্যাসিয়াসের। স্পেনের সাবেক এ গোলরক্ষক পোর্তো ছেড়ে কোথায় যোগ দেবেন, তা এখনো নিশ্চিত নয়। কোথাও যোগ দিলেও সেটা চ্যাম্পিয়নস লিগে প্রতিদ্বন্দ্বিতা না করা ক্লাব হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

রিয়ালের হয়ে তিনবার চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপা জেতা ক্যাসিয়াস ইউরোপসেরা হওয়ার এই প্রতিযোগিতায় কিন্তু সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলা খেলোয়াড়ও। কাল রাতে মাঠে নেমেছিলেন ১৬৭তমবারের মতো। চ্যাম্পিয়নস লিগে সর্বোচ্চসংখ্যক ম্যাচ খেলার রেকর্ডে ক্যাসিয়াসের থেকে বেশ পিছিয়ে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। সাবেক ক্লাব সতীর্থের সঙ্গে ১৯ ম্যাচ ব্যবধানে পিছিয়ে রোনালদো তৃতীয়। ১৫১ ম্যাচ নিয়ে মাঝে বার্সেলোনার সাবেক মিডফিল্ডার জাভি হার্নান্দেজ। বাছাইপর্ব বিবেচনায় নিলে ১৭২ ম্যাচ খেলেছেন ক্যাসিয়াস। এর মধ্যে ১৫২ ম্যাচই রিয়ালের জার্সিতে!

চ্যাম্পিয়নস লিগে রিয়ালের হয়ে ক্যাসিয়াসের অভিষেক ১৮ বছর বয়সে। ১৯৯৯ সালে অলিম্পিকায়োসের বিপক্ষে। কাল পোর্তোর জাল অক্ষত রেখে নিজের একটা রেকর্ড আরও লম্বা করলেন তিনি। চ্যাম্পিয়নস লিগে এ নিয়ে ৫৭ ম্যাচে ‘ক্লিন শিট’ অর্থাৎ কোনো গোল হজম করেননি ক্যাসিয়াস। তবে দ্বিতীয়ার্ধে তাঁর বিশ্বস্ত হাতে গোল হজম করা থেকে বেঁচে যায় পোর্তো। দারুণ এক ‘সেভ’ করে ক্যাসিয়াস তাঁর ক্যারিয়ারের গোধূলি লগ্নে এসে বুঝিয়ে দেন, এখনো ফুরিয়ে যাননি!

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

ব্রেকিং নিউজঃ