ত্রিশালে ৩ কোটি টাকার চেয়ারম্যানের আলীশান বাড়ী !

0

স্টাফ রিপোর্টারঃ প্রায় ৩ কোটি টাকার আলীশান বাড়ী তৈরি করে আবারো আলোচিত হলেন ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল উপজেলার হরিরামপুর ইউনিয়নের বির্তকিত চেয়ারম্যান আবু সাঈদ। আবু সাঈদের এতো টাকার উৎস কোথায় এ নিয়ে হরিরামপুর ইউনিয়নবাসীর মধ্যে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নবাসীর এ ব্যপারে ময়মনসিংহ জেলা দুর্নীতি দমন কমিশন দুদকের বিচক্ষন কর্মকর্তাদের প্রতি জোরালো দৃষ্টি আকর্ষন করে এই প্রতিবেদককে জানান, আবু সাঈদ হরিরামপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হবার পর থেকেই বারবার একাধিক অনিয়ম দুর্নীতি ও সরকারী অর্থ আত্মসাতের মাধ্যমে ইউনিয়নবাসীর সাথে প্রতারনা করে যাচ্ছে। কিন্তু চেয়ারম্যান আবু সাঈদ স্থানীয় জনসাধারনের মতামতকে উপেক্ষা করে তাদেরকে মামলা দিয়ে হয়রানি করে যাচ্ছে। আবু সাঈদের চোর্য্যবৃত্তি এবং প্রতারনার বিরুদ্ধে স্থানীয় হরিরামপুরবাসী বারবার প্রতিবাদি হয়ে হয়ে উঠেছেন । ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসনের কাছে আবু সাঈদের কুকির্তির অভিযোগ জানিয়েছেন ধূর্তচালবাজ আবুসাঈদের অর্থের বিনিময়ে তার সকল অপরাধকে ধামাচাপা দিয়ে বীর দর্পে ঘুরে বেড়াচ্ছে। জানাগেছে চেয়ারম্যান আবু সাঈদ একবার বলে এই কোটি টাকা তার ছেলে বানিয়েছে কিন্তু ছেলে বাড়ী বানানোর কথা অস্বীকার করেছে। অনুসন্ধান করে আরও জানা গেছে, চেয়ারম্যান আবু সাঈদ স্থানীয় সরকারের মাধ্যমে হরিরামপুরের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে স্থানীয় সরকার থেকে প্রাপ্ত কাবিখা, কাবিটা, এলজিএসপি, ৪০ দিনের কর্মসুচি সহ বিভিন্ন দাতা সংস্থার কাছ থেকে প্রাপ্ত অধিকাংশ অনুদানেই লোপাট করে কোটি টাকা আত্মসাৎ বানিজ্যে লিপ্ত থেকে বর্তমানে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়েছে। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের দরিদ্র জনগোষ্ঠির টাকা আত্মসাৎ করে বর্তমানে আবু সাঈদ একজন একজন ঘৃনিত চেয়ারম্যান হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। পাশাপাশি প্রজাতন্ত্রের স্থানীয় জনপ্রতিনিধিত্বশীল সরকারের দায়ীত্ব ও কর্তব্যকে বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে আবু সাঈদ বেপারোয়া লুটপাটে ব্যস্ত । এ নিয়ে স্থানীয় এলাকাবাসীর কাছে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ