দাতের সমস্যা থেকে হতে পারে কান, চোখ, মাথা ব্যাথা

0

অনলাইন ডেস্কঃ কথায় বলে যার মাথা আছে তার ব্যথাও আছে। অর্থাৎ মাথা থাকলে ব্যথাও থাকবে। বিজ্ঞানীদের মতে মাথার ব্যথা অন্যান্য কারণেও হতে পারে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে বেশীর ভাগ মাথা ব্যথার কারণ শুধুমাত্র মাথার অসুস্থতার কারণেই হয় তা সঠিক নয়। শরীরের অন্যান্য অঙ্গ প্রত্যঙ্গের অসুস্থতার কারণেও মাথা ব্যথা হতে পারে। উদাহরণস্বরূপ নাক, কান, গলা অথবা মুখের ভিতরের বিশেষ কোনো রোগের কারণে মাথা ব্যথা হতে পারে। মুখের ভিতরের যে সব কারণে মাথা ব্যথা হতে পারে সেগুলোর মধ্যে মাড়ির প্রদাহ বা পেরিওডন্টাল ডিজিজও। দন্তক্ষয় বা ডেন্টাল ক্যারিজ এর কারণে প্রদাহ জনিত রোগ, পালপাইটিস ও আক্কেল দাঁত বা উইজডম দাঁতের অসমান অবস্থানের কারণে জটিলতা, মুখের ভিতরের বিভিন্ন ধরণের ক্ষত বা ঘা, আঘাত জনিত কারণে চোয়ালের বা দাঁতের ফ্রেকচার বিভিন্ন ধরণের মিছ এবং টিউমার। দাঁতের ও মুখের এই ধরণের রোগ বা অসুস্থতা অনেক সময় কানে বা গলার ব্যথার কারণ হতে পারে। তবে বিশেষ যে একটি রোগ-এর কারণে মাথার ব্যথা বেশী হয় সেটি হলো উইজডম দাঁত বা আক্কেল দাঁতের বেয়াক্কেল অবস্থান। অর্থাৎ আক্কেল দাঁত তার সঠিক অবস্থানে না থেকে বাঁকা হয়ে কখনো পাশের দাঁতের উপর চাপ সৃষ্টি করে কখনো বা বাঁকা অবস্থানের কারণে উপরের দিকে বেরিয়ে আসতে না পেরে স্থানীয় ভাবে প্রদাহ সৃষ্টি করে। এছাড়া বাকা বা অসমান অবস্থানের কারণে পাশের দাঁতে দন্তক্ষয় জনিত প্রদাহ থেকেও মাথা ব্যথা হতে পারে।

আরও একটি বিশেষ কারণে মাথা ব্যথা হতে পারে সেটা হলো ট্রাইজিমিনাল নিউরেলজিয়া। যা স্নায়ু রোগ হিসেবেই চিহ্নিত, কিন্তু এক্ষেত্রেও প্রচণ্ড মাথা ব্যথা হতে পারে যদিও তা কয়েক সেকেন্ডের জন্য হয়। কিন্তু তা বার বার হতে পারে যা মুখের নড়াচড়া যেমন খাবার খাওয়া অথবা কথা বলার সময়ও হতে পারে।

এ প্রসঙ্গে একজন রোগীর কাহিনী বলা প্রয়োজন, তাঁর দীর্ঘদিন যাবত মাথা ব্যথা নিয়ে বিখ্যাত বিশেষজ্ঞ সব ডাক্তারের কাছে পরামর্শ নিয়েই চলছেন কিন্তু মাথা ব্যথা কমার কোন লক্ষণ নাই । রোগ নির্ণয় এর যত রকম মাধ্যম আছে, এমনকি এমআরআই এবং সিটিস্ক্যানও করা হয়েছে, কিছুতেই কমছে না। ব্যথার ওষুধ খেয়ে খেয়ে তিনি ইতিমধ্যে দেহের অনেক ক্ষতি করেছেন। বিশেষতঃ কিডনির সমস্যাও দেখা দিয়েছে। কোনোভাবেই যখন তার মাথা ব্যথা কমছে না তখন প্রতিবেশী একজনের পরামর্শে দাঁতের ডাক্তারের কাছে আসেন কারণ সেই প্রতিবেশী ভদ্রলোক একজন ভুক্তভোগী। পরবর্তীতে তার দাঁতের ডাক্তার এক্সরের মাধ্যমে সনাক্ত করেন একটি আক্কেল দাঁতের অসমান অবস্থানকে। আক্কেল দাঁতের এই বাকা অবস্থানের কারণে পার্শ্ববর্তী দাঁতের উপর ক্রমাগত একটি চাপ সৃষ্টি, সেই সাথে ঐ স্থানে দীর্ঘদিনের ডেন্টাল ফ্লক জমা থাকার কারণে সৃষ্ট ডেন্টাল ক্যারিজ জনিত পালপাইটিসই ছিলো তার দীর্ঘদিনের মাথা ব্যথার মূল কারণ। পরবর্তীতে তার সেই আক্কেল দাঁতের উত্পাটন ও ডেন্টাল ক্যারিজ আক্রান্ত দাঁতের রুট ক্যানেল চিকিত্সাই তাঁকে মুক্ত করে মাথা ব্যথা থেকে।

এমন অনেক ঘটনাই মানুষকে মাথা ব্যথা থেকে রেহাই দিতে পেরেছে। তাই মাথা ব্যথার কারণ বের করতে একজন রোগীর সম্পূর্ণ ইতিহাস যেমন জরুরী তেমনি মুখের ভিতরকার সকল দাঁতের সুস্থতা ও সেই সাথে মাড়ি ও পারস্পরিক সম্পর্ক স্বাভাবিক অবস্থাও নিশ্চিত রাখা প্রয়োজন। এ প্রসঙ্গে বলা প্রয়োজন, আমরা অনেক সময়ই মুখের ভিতরের অবস্থা খালি চোখে দেখে নিরুপন করতে পারি না তাই প্রয়োজন একে সুক্ষভাবে পরীক্ষার-নিরীক্ষার মাধ্যমে সনাক্ত করণ। তবে সাধারণ এই মাথা ব্যথা থেকে মুক্ত থাকতে আমাদের নিয়মিতভাবে দাঁতের যত্ন যেমন নিতে হবে তেমনি বছরে অন্তত দুইবার একজন ডেন্টিস্টের কাছে গিয়ে ডেন্টাল ক্যারিজ মাড়ির প্রদাহ ও মুখের ক্ষত বা ঘা এর মত রোগকে গুরুত্ব সহকারে ফিলিং স্কেলিং ও অন্যান্য কারণ সমূহকে নির্মূল করতে হবে। তাহলে মাথা ব্যথা যেমন থাকবেনা তেমনি অন্যান্য সমস্যা ও থাকবেনা।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ