বিমান দুর্ঘটনায় নিহত আলিফের মরদেহ গ্রামের বাড়িতে


Add
Add

নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত খুলনার আলিফুজ্জামান আলিফের মরদেহ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছেছে।

বৃহস্পতিবার (২২ মার্চ) দিবাগত রাত পৌঁনে ৫টায় খুলনার রূপসা উপজেলার আইচগাতি গ্রামের নিজ বাড়িতে এসে পৌঁছেছে আলিফের মরদেহ। আলিফের খালু ওহিদুজ্জামান দিলীপ বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেছেন।

মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্স তার নিজ বাড়ীতে পৌঁছালে সেখানে স্বজনসহ শত শত মানুষ তাকে দেখার জন্য ছুটে আসেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, আলিফুজ্জামানের নামাজের জানাজা শুক্রবার (২৩ মার্চ) বাদ জুমা রূপসার বেলফুলিয়া ইসলামিয়া হাইস্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত হবে। জানাজা শেষে রাজাপুর মাদরাসা কবরস্থানে দাফন করা হবে।

বৃহস্পতিবার ৪টা ৫৫ মিনিটে নজরুল ইসলাম, পিয়াস রায় ও মোহাম্মদ আলিফুজ্জামানের মরদেহবাহী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি ০৭২ ফ্লাইটটি হজরত শাহজালাল বিমানবন্দরে অবতরণ করে। পরে বিভিন্ন প্রক্রিয়া শেষে আলিফুজ্জামানের বড় ভাই আশিকুর রহমান হামিম ও তার স্বজনদের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী শাহজাহান কামাল।

সন্ধ্যায় রাজধানীর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে আলিফুজ্জামানের জানাজা নামাজ শেষে খুলনার উদ্দেশে মাওয়া ঘাট হয়ে রওনা দেয় মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্স।

খুলনা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক ছাত্রনেতা ও বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ- সভাপতি ছিলেন আলিফুজ্জামান। চলতি বছর খুলনার সরকারি বিএল কলেজ থেকে মাস্টার্স পরীক্ষা দিচ্ছিলেন।

আলিফের বাবার নাম মুক্তিযোদ্ধা মোল্লা আসাদুজ্জামান। ৩ ভাইয়ের মধ্যে মেজ আলিফুজ্জামান নেপালে গিয়েছিলেন বেড়াতে।

১২ মার্চ ইউএস-বাংলার বিএস ২১১ ফ্লাইট বিধ্বস্ত হলে তিনিসহ ২৬ বাংলাদেশি, ২২ নেপালি ও ১ চীনা নাগরিক নিহত হন।

Add
ক্রাইম নিউজ ২৪ এ প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।
ব্রেকিং নিউজঃ
ব্রেকিং নিউজঃ