নারী সাংবাদিকসহ তিনজনের নামে ৫৭ ধারায় মামলা

0

ইংরেজি দৈনিক ফিন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেস-এর স্টাফ রিপোর্টার কামরুন্নাহার শোভাসহ তিনজনের নামে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) আইনের ৫৭ ধারায় মামলা হয়েছে।

হাইকোর্টের অনুমতি নিয়ে সোমবার (২৬মার্চ) দুপুরে গাজীপুরের জয়দেবপুর থানায় মামলা করেন ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাদিরা খাতুনের স্বামী ইমতিয়াজ করিম শুভ।

মামলার অপর আসামিরা হলেন ভোলার পৌরসভা রোড এলাকার মৃত জহুরুল হকের ছেলে মনিরুল হক চৌধুরী ওরফে বুলেট এবং রাজধানী রমনার নিউ ইস্কাটন এলাকার আসাদুজ্জামানের ছেলে মনিরুজ্জামান।

জয়দেবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলামের ভাষ্য, হাইকোর্টের নির্দেশে মামলাটি হয়েছে। তবে ওনি (কামরুন্নাহার শোভা) সাংবাদিক কিনা এটা জানা নেই। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সাখাওয়াত হোসেনের একই ভাষ্য।

মামলার বাদী ইমতিয়াজ করিম শুভ জানান, ফেসবুকে শোভা বিভিন্ন সময় তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন মিথ্যা স্ট্যাটাস দেন। তাই ৫৭ ধারায় মামলা করেছেন।

তিনি জানান, দুপক্ষে জমি সংক্রান্ত বিরোধ রয়েছে। শোভার পরিবারের কাছ থেকে তাদের ক্রয়কৃত জমি বুঝে নিতে গেলে এ বিরোধ সৃষ্টি হয়।

কামরুন্নাহার শোভার ভাষ্য, গত ১২ মার্চ জয়দেবপুর থানার কাশিমপুরের পূর্ব বাগবাড়ি এলাকায় তার পৈত্রিক বসতবাড়ির সম্পত্তি গ্রাস করার জন্য হানা দেয় ইমতিয়াজ করিম ও তার দল। এ ঘটনায় তার বাবা অবসরপ্রাপ্ত স্কুলশিক্ষক মো. কফিলউদ্দীন আহম্মেদ বাদী হয়ে জয়দেবপুর থানায় ১৩ মার্চ মামলা করতে গেলে কর্তব্যরত এসআই লিটনের তত্ত্বাবধানে ১৬ মার্চ তদন্তে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়। পরে তদন্তে যাওয়ার আগেই শুভচক্র এজাহারের বিষয়ে টের পেয়ে ১৫ মার্চ মধ্যরাতে সাদা পোশাকধারী একদল পুলিশের সহায়তায় তার একমাত্র এইচএসসি পরিক্ষার্থী ভাই শাখাওয়াত আহম্মেদ এবং চাচাতো ভাই সাজু আহম্মেদ ও বাবু মিয়াকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। পরদিন নারী সাংবাদিকের পরিবারের নয় সদস্যের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামা ১০-১৫ জনকে আসামি করে পাল্টা মামলা করেন ইমতিয়াজ করিম। মামলার এজাহারে মুরগি ও গরু চুরি, চাঁদাবাজি এবং চার মাসের শিশু হত্যাচেষ্টার অভিযোগ আনা হয়। ওই সময় তিনি কক্সবাজারে ছিলেন। পরে ঢাকায় ফিরে গত ১৬ মার্চ বিষয়টি জানতে পারেন।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

ব্রেকিং নিউজঃ