মাত্র ৫০০ টাকায়…!

0

ঘটনাটা ২০১৬ সালের। মাত্র ৫০০ টাকা হাতে নিয়ে অচেনা মুম্বই শহরের মাটিতে পা রেখেছিলেন তিনি৷ তীব্র প্রতিযোগিতার বাজারে অবশ্য নিজেকে হারিয়ে যেতে দেননি৷ বলছি বলিউড অভিনেত্রী দিশা পাটানির কথা। 

মন থেকে পেশার প্রতি দায়িত্ববান হওয়ার দৌলতে উর্ধমুখী হয়েছে তাঁর সাফল্যের মিটার৷ এরই মধ্যে দুটি ব্লকবাস্টার ছবি তাঁর ঝুলিতে!

আট থেকে আশি সকলের উন্মাদনা এই অভিনেত্রীকে ঘিরে৷ চারিদিকে বাজিমাত করা এই অভিনেত্রী কিনা মাত্র ৫০০ টাকা পুঁজিকে সম্বল করে স্বপ্নের নগরীতে পা রেখেছিলেন৷ ‘বাঘি টু’ ছবির সাফল্যের কথা বলতে গিয়ে নিজেই এই তথ্য সামনে এনেছেন পর্দাকন্যা৷ 

কথায় কথায় দু’বছর আগের স্মৃতিতে ডুব দিয়েছেন দিশা পাটানি৷ বলেছেন, “যখন এই শহরে পা রাখি তখন আমার সম্বল বলতে ছিল মাত্র ৫০০ টাকা! বলিউডে ক্যারিয়া শুরুর প্রথম দিককার দিনগুলোয় কত যে বাধা অতিক্রম করতে হয়েছিল৷”

দীর্ঘশ্বাস ছেড়ে তণ্বী হিরোইন বলতে থাকেন, “ছোট থেকেই অভিনেত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখতাম৷ সেই স্বপ্ন পূরণের জন্য মাঝপথেই পড়াশোনা ছেড়ে দিয়েছিলাম৷ কলেজ ড্রপআউট হয়ে অচেনা অজানা শহরে এসে নিজেকে সামলানোটা খুব কঠিন ছিল আমার কাছে৷ বাড়ি ভাড়ার টাকা মেটানোর জন্য চাকরি জোগাড় করি৷ এমনও হয়েছে যে একটা সময় আমার কাছে একটা পয়সাও ছিল না”

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে হিরোইন দাবি করেছেন, ফিল্মি ব্যাকগ্রাউন্ড না থাকার ফলে একের পর এক রিজেকশনের মুখোমুখি হতে হয়েছে তাঁকে৷ তবে কখনও নিজের মনোবল হারাননি৷ ফলে এখন বলিউডে নিজের একটা পাকাপোক্ত জায়গা বানিয়ে ফেলেছেন দিশা৷

তবে আত্মসন্তুষ্টিতে ভুগতে নারাজ নায়িকা৷ বরং চলার পথে অভিজ্ঞতা থেকে এখন তিনি একটু বেশিই সতর্ক৷ দিশার কথায়, “আমরা কেউই ভবিষ্যত দেখিনি৷ ফলে এই মুহূর্তে আমি বলতে পারব না, যে আমার আগমী ছবিগুলি কেমন হবে৷ পরবর্তীকালে আমায় কেউ কাজ দেবেন কি না৷ 

আমি আমার পেশাটাকে মন থেকে ভালোবাসি৷ স্যুটিং ফ্লোরে সবসময় চেষ্টা করি নিজেকে ১০০ শতাংশ উজাড় করে দিতে৷ ছবির স্বার্থে সবসময় চরিত্রটার ভিতরে ঢুকে কাজ করার চেষ্টা করি৷ এক্ষেত্রে আমি কোনও খামতি করি না৷ সুযোগ পেলেই নিজেকে ষোলো আনা প্রমাণ করার চেষ্টা করি৷”

‘বাঘি টু’ তে তিনি নায়িকা হলেও সিকোয়েল ছিলেন শ্রদ্ধা কাপুর৷ শ্রদ্ধার স্ক্রিন প্রেজেন্স ছিল অসাধারণ৷ তবে তাতে কিন্তু একটুও ঘাবড়াননি দিশা৷ তাঁর কাছে চিত্রনাট্যটি এক্কেবারে নতুন৷ 

তিনি জানান, প্রথম পার্টে ছিলেন না বলেই সেরকম কোনও প্রেশার অনুভব করেননি৷ উল্টে খুব কনফিডেন্টলি সাবলিলভাবে অভিনয় করেছেন ছবির ‘নেহা’র চরিত্রে৷ 

ইতিমধ্যে তাঁর সেই অভিনয় গোগ্রাসে গিলেছেন দর্শকেরা৷ স্বভাবতই, স্বস্তির ছাপ নায়িকার চোখে-মুখে৷গো নিউজ২৪

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ