চাঁপাইনবাবগঞ্জে ধর্ষণ মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন

0

নিজস্ব প্রতিবেদক : চাঁপাইনবাবগঞ্জে একটি ধর্ষণ মামলার রায়ে তিন যুবককে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড, সেই সাথে প্রত্যেককে ১ লক্ষ টাকা করে অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরও ১ বছর করে বিনাশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত করেছেন আদালত। অর্থদণ্ডের টাকা ধর্ষিতা প্রাপ্য হবেন বলেও রায়ে উল্লেখ করা হয়। দণ্ডিতরা হলেন, সদর উপজেলার চুনাখালী খলিফাপাড়া গ্রামের কসিমুদ্দিনের ছেলে সোহেল ওরফে বাবু (২৭), একই গ্রামের বিষু খলিফার ছেলে দবির আলী (২৮) ও ফড়িং বিশ্বাসের ছেলে আমিনুল ইসলাম(২৩)।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল-২ এর বিচারক এবং অতিরিক্ত দায়রা জজ জিয়াউর রহমান প্রধান আসামী সোহেল ওরফে বাবু’র উপস্থিতি এবং অপর দুই আসামী দবির ও আমিনুলের অনুপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেন। মামলার বিবরণে ও সরকারী কৌসুলী আঞ্জুমান আরা জানান, মোবাইল ফোনে মাত্র দু’মাস পূর্বে পরিচয়ের সুত্রে দণ্ডিত সোহেল ধর্ষিতা যুবতীর (২৯) সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন।

এরই এক পর্যায়ে বিয়ের প্রলোভনে ২০১৫ সালের ৬ জুন সন্ধ্যায় তিনি যুবতীকে বাড়ি থেকে ডেকে নেন। সোহেল ও তাঁর দু’সহযোগী সন্ধ্যা ৭টার দিকে সদর উপজেলার বোলতলা এলাকায় ইজিবাইকে চড়িয়ে বিয়ে পড়ানোর কথা বলে যুবতীকে সদর উপজেলার হোসেনডাইং এলাকায় নিয়ে যান।

রাত ৯ টায় সেখানে একটি বরই বাগানে সোহেল ওই যুবতীকে ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। এসময় তাঁর দু’সহযোগী যুবতীকে ভয় দেখান। পরে যুবতীর চিৎকারে এলাকাবাসী ঘটনাস্থলে পৌঁছে পলায়নরত অবস্থায় তিনজনকেই আটক করে পুলিশে দেয়। এঘটনায় ধর্ষিতা নিজেই বাদী হয়ে পরদিন ৭ জুন সদর থানায় মামলা করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সদর থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) দুলালউদ্দিন ওই বছরের ৩০ জুন আদালতে তিনজনকে অভিযুক্ত করে চার্যশীট দাখিল করেন। ৬ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ ও শুনানী শেষে আদালত বুধবার প্রধান আসামীর উপস্থিতিতে ও পলাতক অপর দু’আসামীর অনুপস্থিতিতে মামলার রায় ঘোষণা করেন।
আসামী পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন আ্যাড.বিলকিস খাতুন।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ