বর প্রবাসে আর কনে বাংলাদেশে; বিয়ে হলো মোবাইলে

0

দীর্ঘদিন ধরেই প্রবাসীদের মধ্যে মোবাইলে বিয়ের একটা প্রথা চালু আছে। নানা অসুবিধাজনিত কারণে প্রবাসে অবস্থানরত নারী-পুরুষ দেশে অবস্থানরত নারী-পুরুষের মাঝে মোবাইলে বিয়ে হয়। মূলত মধ্যপ্রাচ্যসহ এশিয়া ও ইউরোপে বসবাসরত প্রবাসীদের মাঝে এই প্রথা ব্যাপক লক্ষ করা যায়।

তেমনি মালয়েশিয়ায় জমকালো আয়োজনে শতাধিক কমিউনিটির উপস্থিতিতে সম্পন্ন হল আরেকটি মোবাইল বিয়ে। ২ এপ্রিল সন্ধ্যায় মালয়েশিয়ার সেলাঙ্গুরের সেলায়াং পাসারে কর্মরত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয় নগর থানার সেজামোরা গ্রামের মৃত আবদুল আলীমের ছেলে প্রবাসী মো. শাহ আলম মিয়া (২৪) এই প্রথায় বিয়ে সম্পন্ন করলেন। একই জেলার কসবা থানার সওদাবাজ গ্রামের মো. আলমগীর খানের মেয়ে শ্রাবনের (১৯) সঙ্গে তিন লাখ টাকার দেনমোহরে এই বিবাহ সম্পন্ন হয়।

মোবাইল বিয়ের অনুষ্ঠানে প্রবাসী কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের মধ্যে মনিরুজ্জামান মনির, মনির বিন আমজাদ, জালাল উদ্দিন সেলিম, শাখাওয়াত হক জোসেফ, সেলিম আহমদ, আসাদ মিয়া সহ সেলায়াং পাসারের ব্যবসায়ি নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সবাই শাহ আলম ও শ্রাবনের নতুন জীবনের সুখ সমৃদ্ধি কামনা করেছেন।

জানা যায়, শাহ আলম ভাগ্য পরিবর্তনে এবং পরিবারে স্বচ্ছলতা ফিরিয়ে আনার আশায় ২০০৯ সালে পাড়ি জমান মালয়েশিয়ায়। তার বড় ভাই মো. হানিফ মিয়া ওরফে পিছু শাহ আলমকে নিয়ে যান মালয়েশিয়ায়। ২০০৭ সালে হানিফ কলিং ভিসায় পাড়ি জমান। দুই ভাই মিলে পরিবারের স্বচ্ছলতা ফিরিয়ে এনেছেন। মালয়েশিয়ার সর্ববৃহৎ সব্জিবাজার সেলায়াং পাসারে রয়েছে একটি সব্জি দোকান।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

ব্রেকিং নিউজঃ