নেত্রকোনা ও বাঁশখালীতে পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু

0

নেত্রকোনা ও বাঁশখালীতে পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু

ট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী ও নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলায় বাড়ির পাশের পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। আজ শনিবার পৃথক স্থানে ঘটনা দুটি ঘটে।
নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলায় বাড়ির পাশের পুকুরের পানিতে ডুবে রামিয়া আক্তার নামে আড়াই বছরের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। আজ দুপুরে উপজেলার জালালপুর মাইজপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। রামিয়া ওই গ্রামের শাহ আলমের মেয়ে।
স্থানীয় বাসিন্দা সূত্রে জানা গেছে, আজ বেলা ১১টার দিকে রামিয়া বাড়ির সামনে উঠানে খেলা করছিল। বেশ কিছু পরে পরিবারের লোকজনের খেয়াল হয় রামিয়া আশপাশে কোথাও নেই। পরে রামিয়ার বড় ভাই রনি মিয়া বাড়ির পাশের পুকুরে শিশুটিকে ভেসে থাকতে দেখে। পরিবারের লোকজন রামিয়াকে উদ্ধার করে কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন।
কেন্দুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইমারত হোসেন গাজী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
এদিকে চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলায় মোহাম্মদ আবদুল্লাহ নামে ছয় বছরের এক শিশু বাড়ির পাশের পুকুরে ডুবে মারা গেছে। আজ দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার চাম্বল ইউনিয়নের পূর্ব চাম্বল এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে।
আবদুল্লাহ দক্ষিণ চাম্বল তালিমুল কোরআন নুরানি মাদ্রাসার প্রথম শ্রেণির ছাত্র ছিল।
মারা যাওয়া শিশুটির মামা বেলাল উদ্দিন বলেন, দুপুরের দিকে আবদুল্লাকে খুঁজে পাচ্ছিলেন না তার মা জুলহা আক্তার। পুকুরপাড়ে তার হাফপ্যান্ট পড়ে থাকতে দেখে মায়ের সন্দেহ হয়। আশপাশের লোকজনকে অনুরোধ করলে তারা পুকুরে ডুবে থাকা অবস্থায় আবদুল্লাহকে খুঁজে পায়। দ্রুত তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসক আবদুল্লাহকে মৃত ঘোষণা করেন।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তৌহিদুল আনোয়ার বলেন, হাসপাতালে আনার আগেই শিশুটির মৃত্যু হয়েছে।
বাঁশখালী থানার ওসি মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
 
তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ