‘নদী বাঁচাও, চাঁপাইনবাবগঞ্জ বাঁচাও’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত

0

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ‘নদী বাঁচাও, চাঁপাইনবাবগঞ্জ বাঁচাও’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সাধারণ পাঠাগারে স্থানীয় পরিবেশবাদী স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘সেভ দ্য নেচার’ এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

সংগঠনের প্রধান সমন্বয়ক রবিউল হাসান ডলারের সভাপতিত্বে বৈঠকে সঞ্চালক ছিলেন শহীদুল হুদা অলক। প্যানেল আলোচক ছিলেন নবাবগঞ্জ সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ ও উদ্ভিদ বিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক দাউদ হোসেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সনাক সভাপতি সাইফুল ইসলাম রেজা,পানি উন্নয়ন বোর্ড উপসহকারী প্রকৌশলী সুকেশ কুমার রায়, সমাজকর্মী মনিম উদ দৌলা চৌধুরী ও শফিকুল আলম ভোতা। মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই ‘নদীর জীবন’ নামে চাঁপাইনবাবগঞ্জে ১৯১ কি.মি প্রবাহিত চারটি নদী পদ্মা, মহানন্দা, পাগলা ও পূণর্ভবা নিয়ে নির্মিত একটি প্রামাণ্য ভিডিও চিত্র উপস্থাপন করেন ফয়সাল মাহমুদ। এতে এককালের খরস্রোতা নদীগুলির বর্তমান মৃতপ্রায় চিত্র তুলে ধরা হয়।
বৈঠকের মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এমএ মাহবুব। এতে নদী খনননের মাধ্যমে নাব্যতা ফেরানোর উপর গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।
আলোচকরা বলেন, বাংলাদেশ ভাটির দেশ হওয়ায় ভারত থেকে প্রবাহিত নদীগুলিতে উজানে বাঁধ দেয়ায় নদীগুলিতে স্বাভাবিক পানির প্রবাহ কমে গেছে। বিশেষ করে ফারাক্কা বাঁধ চাঁপাইনবাবগঞ্জ সীমান্তের ওপারে হওয়ায় সরাসরি এর ক্ষতিকর প্রভাব পড়েছে জেলার নদীগুলির উপর। ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে মানুষের জীবন-জীবিকা ও জীব বৈচিত্র। আন্তর্জাতিক আইন অমান্য করে পানির নায্য হিস্যা দেয় না ভারত। স্থানীয়ভাবে এর সাথে রয়েছে দূষণ, নদীর পানির অপরিকল্পিত ব্যবহার, নদী দখল,বালু উত্তোলণ, অদূরদর্শী নদী শাসনের মত কিছু বিষয়। ফলে পানির ভূউপরিস্থ ও গর্ভস্থ পানির স্তর নেমে গেছে। দিন দিন এর ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে। স্থানীয়ভাবে দূষণ, জলাধার সংরক্ষণসহ বিভিন্ন আইনের প্রয়োগ নেই।

আলোচকরা এসব ব্যাপারে জনপ্রতিনিধিদের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। কারণ, এসব সমস্যার সমাধান বহুলাংশে জাতীয় নীতি নির্ধারকদের ভূমিকার উপর নির্ভরশীল। তাঁরা চাঁপাইনবাবগঞ্জে ১৬০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিয়মান দেশের বৃহত্তম রাবার ড্যামের মত পানি সংশ্লিষ্ট প্রকল্পগুলি নদী ও পরিবেশের উপর কি ধরনের প্রভাব ফেলে সেসব নিয়েও আলোচনা করেন।
বক্তরা বলেন, নদী মাতৃক বাংলাদেশ এখন আর নেই। কিন্তু নদীর প্রাণ বাঁচালে বাঁচবে প্রকৃতি, বাঁচবে মানুষ। তাঁরা এ ব্যাপারে সকলের সচেতনতার উপর গুরুত্ব দেন।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

ব্রেকিং নিউজঃ