মচিমহার বাবুর্চী আজ কোটি টাকার মালিক

সাতবছর আগেও যে হাশেম আলী মচিমহার রান্না ঘরের বাবুর্চী ছিলো রাতারাতি তার কোটি টাকার সম্পদ

0

স্টাফ রিপোর্টার:

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নুন্যতম একজন বাবুর্চী হাশেম আলী আজ কোটি কোটি টাকার মালিক কিভাবে হলেন এনিয়ে চরপাড়াবাসীর কৌতুহলের শেষ নেই। চরপাড়ায় তার আলীশান বাড়ী দেখে চরপাড়াবাসী অবাক হয়েছেন। তারা প্রশ্ন রেখেছেন, সাতবছর আগেও যে হাশেম আলী মচিমহার রান্না ঘরের বাবুর্চী ছিলো রাতারাতি তার কোটি টাকার সম্পদ কেমন করে হলো?

জানাগেছে, মচিমহার পরিচালক নাসির উদ্দিন আহমেদের আর্শীবাদ পুষ্ট হয়ে একই সাথে হাশেম আলী এখন মচিমহা এবং সিলেট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের খাদ্যের ঠিকাদার। এখানেই তার দুর্নীতি এবং সরকারী টাকা আতœসাতের প্রধান উৎস। হাশেম আলীর কাজই ছিল প্রতিটি খাদ্যের ওজনে কম দেয়া। খাদ্যের ওজনে কম দিয়ে ঠিকাদার হাশেম আলী সাত বছর পর মচিমহা থেকে ফুলেফেপে একাট্টা হয়ে এখন নামে-বেনামে ব্যাংকে একাউন্ট জমিজমা বিষয় সম্পত্তি এবং আলীশান বাড়ীর মালিক। মচিমহা সংশ্লিষ্টরা বলেছেন, হাশেম আলী ঠিকাদারের ধনদৌলতের মালিক করার নেপথ্যে পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাসির উদ্দিন আহমেদের প্রত্যক্ষ ইঙ্গিত থাকার কারনেই সামান্য বাবুর্চী হাশেম আলীর রোগীদের খাদ্যে ওজন কম দেয়ার এই রমরমা বাণিজ্য।

অভিযোগে জানাগেছে, বিএনপি এবং জামাত চক্রের আর্শীবাদপুষ্ঠ হাশেম আলী গোপনে বিএনপি জামাত চক্রকে একটি বড় অংকের চাঁদা দিয়ে আসছে। এই টাকার যোগান দেওয়া হয় রোগীদের নি¤œমানের খাদ্য সরবরাহ যা সবসময়ই ওজনে কম দেয়া হয় এবং অনান্য আউট সোর্সিং থেকে। জানাগেছে, হঠাৎ করে হাশেম আলীর বিত্তবৈভব দেখে স্থানীয়বাসীদের চোখ কপালে উঠেছে। একজন বাবুর্চীর পক্ষে এত্ত কি সম্ভব! দুর্নীতি দমন কমিশন এ ব্যাপারে জরুরী হস্তক্ষেপ করবেন। মচিমহার সংশ্লিষ্ট মহল এবং স্থানীয়বাসী এই প্রত্যাশা করেছেন।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

ব্রেকিং নিউজঃ