স্টুডেন্ট কমিউনিটি পুলিশিং একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ

0

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পুলিশের স্টুডেন্ট কমিউনিটি পুলিশিং কমিটি গঠন একটি প্রশংসনীয়, দেশপ্রেমী ও সময়োপযোগী উদ্যোগ।

এ কার্যক্রম পুলিশ ও শিক্ষার্থীদের মাঝে পারস্পারিক সম্পর্কোন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। স্টুডেন্ট কমিউনিটি পুলিশিং কমিটি গঠনের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন মানবাধিকার কর্মী ও সুশীল সমাজের ব্যক্তিবর্গ।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পুলিশ সুপার টি.এম মোজাহিদুল ইসলামের নির্দেশনা ও সার্বিক তত্বাবধানে স্টুডেন্ট কমিউনিটি পুলিশিং কমিটি গঠনের কাজ শুরু করেছে পুলিশ সার্জেন্ট আব্দুল আলীম খান।

“পুলিশ শিক্ষার্থীর সেতু বন্ধন, গড়বে সুন্দর শিক্ষাঙ্গন” এ স্লোগানকে ধারন করে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করণ ও কমিটি গঠনের কাজ করছেন পুলিশ।

সম্প্রতি চাঁপাইনবাবগঞ্জ সরকারী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে স্টুডেন্ট কমিউনিটি পুলিশিং বিষয়ক মতবিনিময় সভা ও পলিটেকনিক শাখার কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ প্রকৌশলী হুমায়ন কবির খান এর সভাপতিত্বে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ পুলিশ সুপার টি.এম মোজাহিদুল ইসলাম বিপিএম।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. মাজহারুল ইসলাম তরু, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইকবাল হোসাইন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মঞ্জুর রহমান, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর মোঃ জাহিদ হোসেন সরকার।

পুলিশ সুপার টি.এম মুজাহিদুল ইসলাম বলেন, কৌতুহল বসত গুরুতর অপরাধে জড়িয়ে পড়ে শিক্ষার্থীরা। অনেক ধর্মান্ধ জঙ্গি সংগঠন শিক্ষার্থীদের ভুল বুঝিয়ে বিপথে পা বাড়াতে বাধ্য করে। পুলিশের সাথে শিক্ষার্থীদের নিয়মিত যোগাযোগ থাকলে শিক্ষার্থীদের বিপথে ধাবিত হওয়ার সম্ভাবণা কমবে।

তিনি বলেন, আমাদের মূল প্রতিপাদ্য পুলিশ-স্টুডেন্ট কমিউনিটি সমন্বিত উদ্যোগ এবং পুলিশ কার্যক্রমে প্রো-অ্যাকটিভ এবং সমাধান মূলক পদ্ধতি প্রয়োগ। লক্ষ্য- সন্ত্রাস, মাদক ও জঙ্গীবাদ মুক্ত শিক্ষাঙ্গন। পুলিশ ও শিক্ষার্থীদের মাঝে পারস্পারিক সেতু বন্ধন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে স্টুডেন্ট কমিউনিটি পুলিশিং এর মাধ্যমে শিক্ষার পরিবেশ উন্নয়ন, ইভটিজিং,বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে সচেতনতা, যৌতুক ও পারিবারিক নির্যাতন বন্ধে রুখে দাঁড়ানো, প্রতিদিন অপরাধের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা, উত্তম আচরণ ও সেবা দিয়ে পুলিশ ও জনগনের সহযোগিতা করার উদ্দেশ্যে স্টুডেন্ট কমিউনিটি পুলিশিং কমিটি গঠনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

এই স্টুডেন্ট কমিউনিটি পুলিশিং এর মাধ্যমে শিক্ষাঙ্গন থেকে সন্ত্রাস, মাদক ও জঙ্গিবাদ মুক্ত করা সম্ভব। পুলিশ- শিক্ষার্থীর কমিউনিটি শিক্ষাঙ্গন তথা সমাজ থেকে সকল ময়লা অপসরণ করা সম্ভব বলে মনে করেন তিনি।

স্টুডেন্ট কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির সংগঠক আব্দুল আলীম খান জানান, পুলিশ সুপারের নির্দেশে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে কমিটি গঠনের কাজ করে যাচ্ছি। স্বল্প সময়ের মধ্যে নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ ও এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় শাখার কমিটি গঠন করা হবে।

 

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

ব্রেকিং নিউজঃ