চাঁপাই ম্যাংগো ফেস্টে লাঠি খেলা-পট গান-পতুল নাচ-গম্ভীরা ফুটে উঠেছিল চাঁপাই এর আদি ইতিহাস ও সংস্কৃতি

0

আম উৎপাদন, সংরক্ষণ ও আম ভিত্তিক পর্যটন শিল্পের বিকাশ এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার অর্থনৈতিক সম্ভাবনা শীর্ষক সেমিনার, গম্ভীরা আলকাপ ও পটগানসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজনের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে প্রথমবার আয়োজিত চাঁপাই ম্যাংগো ফেস্ট।

জেলা প্রশাসক মাহমুদুল হাসান ও সদর আসনের এমপি আব্দুল ওদুদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় এ ম্যাংগো ফেস্টের আয়োজন করা হয়। বারঘরিয়ায় দৃষ্টি নন্দন পার্কে ম্যাংগো ফেস্ট গত শুক্রবার বিকেলে বেলুন উড়িয়ে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. জিল্লার রহমান। মেলায় মোট ৪৫ টি স্টল অংশগ্রহণ করে। স্টলে সরকারি, বে-সরকারি প্রতিষ্ঠান, পুলিশসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করে।

আম প্রদর্শনের পাশাপাশি বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয় এ ফেস্টে। প্রয়াস ফোক থিয়েটার ইনস্টিটিউট, মহানন্দা সঙ্গীত নিকেতন, চাঁপাই গম্ভীরা দল, জেলা শিল্পকলা একাডেমিসহ একক ও দলীয় গান পরিবেশন করেন শিল্পীরা। ফেস্টের প্রথম দিনই মঞ্চ মাতান প্রয়াস ফোক থিয়েটার ইনস্টিটিউট এর শিল্পীরা। গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য বিলুপ্তপ্রায় লাঠি খেলা দেখান হাজারো দর্শকদের। টিম লিডার মনিরুল ও আজিম নিখুঁতভাবে লাঠি হাতে বিভিন্ন কসরত প্রদর্শন করেন। আর তাদের সাথে সহায়তা করেন ফোক থিয়েটারের রিতা খাতুন, মৌসুমি খাতুন, মেহেরুন মায়া, তমা খাতুন, শ্যামল বর্মন, কুমারি শিখা রানী, শরিফুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর আলম, দুরুল ইসলাম, আজিজুর রহমান আজাদ, বৃষ্টি খাতুন, সালমা খাতুন, রমজান আলী, আওরঙ্গজেব কারন, আনাম আলী। প্রত্যেক এর মনোমুগ্ধকর উপস্থাপনা দর্শকদের মন জয় করে।

এ ছাড়া উদ্বোধনের দিন শিবগঞ্জের মনাকষা থেকে লাঠিয়াল বাহিনী এসে র‌্যালিতে নানা রকম লাঠি খেলা প্রদর্শন করে হাজারো দর্শককে হতবাক করে দেন। তাদের ভেতর সুলতান, উকিল, জাহির মিয়া, তাহের, শাকিল, দাবিরসহ আরো অনেকে এসেছিলেন লাঠি খেলা দেখাতে। তাদের সাথে কথা বললে তারা জানান, সেই ছোট বেলা থেকেই আমরা বিভিন্ন স্থানে লাঠি খেলা দেখিয়ে থাকি।
ফেস্টের দ্বিতীয় দিন বিকেলে আবার মঞ্চ মাতাতে উঠেন প্রয়াস ফোক থিয়েটার ইনস্টিটিউট এর শিল্পীরা। এদিন তারা চাঁপাইনবাবগঞ্জ এর ইতিহাস সম্পর্কে পট গান পরিবেশন করেন। দৃশ্যপটের মাধ্যমে পট গানে আদি ইতিহাস তুলে ধরা হয়। ব্যাপক দর্শক তুমুল উৎসাহ নিয়ে পট গান উপভোগ করেন। প্রশাসনসহ বিভিন্ন দর্শক এর দাবি আরো বিভিন্ন বিষয় নিয়ে যেন পট গান পরিবেশন করা হয়।

এ দিন স্টেজে গান পরিবেশন করেন সার্জেন্ট আব্দুল আলিম। এরপর জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ব-বিদ্যালয়ের গল্প অবলম্বনে পতুল নাট্যদল পতুল নাচ প্রদর্শন করেন। সেটিও ব্যাপক মানুষ করতালির মাধ্যমে উপভোগ করেন। এ ছাড়া একক সঙ্গীত পরিবেশন করেন জেলার বিভিন্ন শিল্পীরা। মেলার শেষ দিন ঢাকা থেকে আগত শিল্পীদের পরিবেশনায় গান হবার কথা ছিল কিন্তু শিবগঞ্জের নির্বাহী অফিসার শফিকুল ইসলাম মৃত্যুবরণ করায় তাঁর রুহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়ার মধ্য দিয়ে মেলার সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।
দর্শকসহ জেলা বাসীর এখন একটাই দাবি সামনে বছর যেন আরো বড় পরিসরে ম্যাংগো ফেস্ট নামকরণ না করে আম মেলা বা আমের হাট নাম দিয়ে এ আয়োজন করা হয়।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ