উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সামনে রেখে প্রার্থী বাছাই কার্যক্রম শুরু করেছে আওয়ামী লীগ

0

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সামনে রেখে প্রার্থী বাছাই কার্যক্রম শুরু করেছে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ। অপর দিকে বিএনপি ও জামায়াতের এখনও সিদ্ধান্ত হয় নি বলে জানা গেছে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ ইতোমধ্যে প্রার্থী বাছাইয়ে এক সভার আয়োজন করে। সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ি চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও সংরক্ষিত আসনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতে ইচ্ছুক নেতা-নেত্রীদের কাছ থেকে আবেদন আহবান করা হয়। শুক্রবার ছিল আবেদন জমা দেয়ার শেষ দিন এবং শেষ দিন রাত ৮টা পর্যন্ত চেয়ারম্যান পদে ৭ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১৫ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আবেদন করেছেন ৪ জন।

সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এবং মনোনয়ন কমিটির যুগ্ন আহবায়ক হাফিজুর রহমান ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মনোনয়ন কমিটির যুগ্ন আহবায়ক শরিফুল আলম জানান-চেয়ারম্যান পদে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিজানুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তাজিবুর রহমান, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান তোতা, বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা সোহরাব আলী, জেলা পরিষদ সদস্য ও জেলা কৃষক লীগের সহ-সভাপতি আব্দুল হাকিম ও যুবলীগ কর্মী মাসুদ দলীয় মনোনয়ন পেতে আবেদন করেছেন।

অপর দিকে ভাইস চেয়ারম্যান পদে আবেদনকারীরা হলেন-পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি বোর্ডে সভাপতি মনিরুল ইসলাম, সদর উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক লেনিন প্রামানিক, তসিকুল আলম বাবলু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহানশা আকবর ও জসিম উদ্দিন, জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক মোসফিকুর রহমান টিটু, কৌশিক আহমেদ, আব্দুল মতিন, শাহজালাল শাহীন, অনিকুল ইসলাম অনিক, মনির হোসেন বকুল, আব্দুল গনি, শাহনেওয়াজ কবির দুলাল, সৈয়দ লিয়াকত আলী লিটন, তাজিবুর রহমান।

সংরক্ষিত আসনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আবেদনকারীরা হলেন শরিফা খাতুন বেবী, তাসমিম আক্তার কলি, মাতুয়ারা বেগম ও নাসরিন পারভীন।

অপরদিকে, বিএনপি ও জামায়াতের এ ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।
উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শামসুল হক (মরহুম) (আনারস), বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী তসিকুল ইসলাম তসি (কাপপিরিচ), জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী মোখলেশুর রহমান (মোটর সাইকেল) ও জাসদ সমর্থিত প্রার্থী নিয়ামুল হক (দোয়াতকলম) প্রতীকে ভোট যুদ্ধে অবতীর্ণ হন। তাঁদের মধ্যে মোখলেশুর রহমান নির্বাচিত হন।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আবু সুফিয়ান (চশমা), বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী রহমত আলী (টিউবওয়েল), জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী মোহাম্মদ সোহরাব আলী (তালা) ও জাসদ সমর্থিত প্রার্থী রফিকুল ইসলাম উড়োজাহাজ) প্রতীকে নির্বাচন করেন। তাঁদের মধ্যে মোহাম্মদ সোহরাব আলী নির্বাচিত হন। অপর দিকে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী সাকিনা খাতুন (ফুটবল), বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মোসা. ফতেমা (কলস) ও জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী ইয়াসমিন আরা বেগম (হাঁস) প্রতীক নিয়ে

নির্বাচন করেন। তাঁদের মধ্যে ইয়াসমিন আরা বেগম নির্বাচিত হন।
২০১৪ সালের ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীরা মনে করেছিলেন, দল যেহেতু ক্ষমতায় সেহেতু আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীরা জয়লাভ করবেন। কিন্তু ফল হয় উল্টো। ২০১৪ সালের মতো এবারও আওয়ামী লীগ ক্ষমতায়। তবে এবার সদ্য অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী জয়লাভ করেছেন।

এবার আওয়ামী লীগকে অতীতের পরাজয়ের কথা বিবেচনায় নিয়েই ভোটের মাঠে নামতে হবে-এমনটাই মনে করেন দলটির মাঠ পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা।


তারেক আজিজ

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

ব্রেকিং নিউজঃ