শ্রীলঙ্কায় হামলার হোতা হাশিম হামলার সময়ই নিহত

0

শ্রীলঙ্কার গির্জা ও হোটেলে সিরিজ বোমা হামলার ঘটনায় অন্যতম সন্দেহভাজন জাহরান হাশিম দেশটির রাজধানীর বিলাসবহুল শাংরি-লা হোটেলে হামলার সময় নিহত হয়েছেন বলে জানান দেশটির প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা।

আজ শুক্রবার আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম এএফপি এ তথ্য জানায়।

এএফপির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা বলেন, দেশের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো তাকে জানিয়েছে, ইস্টার সানডেতে কলম্বোর বিলাসবহুল শাংরি-লা হোটেলে হামলার সময় জাহরান হাশিম নিহত হন।

সিরিসেনা না, স্থানীয় উগ্রপন্থী ইসলামি গোষ্ঠী ন্যাশনাল তৌহিদ জামায়াতের (এনটিজে) নেতা ছিলেন জাহরান হাশিম।

এএফপির ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হামলার পর হাশিমের অবস্থান সম্পর্কে কিছু জানাতে পারেনি শ্রীলঙ্কার কর্তৃপক্ষ। কিন্তু আজ দেশটির প্রেসিডেন্ট জানালেন, ঘটনার দিন হামলার সময় হাশিম নিহত হয়েছেন। শাংরি-লা হোটেলে হামলায় হাশিমের ভূমিকা কী ছিল, তা তাৎক্ষণিকভাবে স্পষ্ট করেননি শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট।

এদিকে দেশটির স্থানীয় একটি সংবাদমাধ্যম বলছে, হাশিম ২০১৪ সালে কাত্তানকুদিতে এনটিজে প্রতিষ্ঠা করেন। শ্রীলঙ্কার মুসলিম কাউন্সিলের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিলমি আহমেদ জানান, হাশিম সম্পর্কে তিন বছর আগে স্থানীয় প্রশাসনকে জানিয়েছিলেন তিনি।

হিলমি আহমেদ বলেন, মোহাম্মদ জাহরান মৌলভি হাশিম নামেও হাশিম পরিচিত ছিলেন। তার বয়স প্রায় ৪০ বছর। তিনি বাত্তিকোলার বাসিন্দা। মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান হাশিম। একসময় পড়াশোনা ছেড়েছিলেন তিনি। কাত্তানকুদির একটি ইসলামি কলেজে পড়তেন তিনি।

এর আগে গত রবিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত শ্রীলংকার রাজধানী কলম্বোসহ দেশটির বিভিন্ন এলাকায় গির্জা ও হোটেলে সব মিলিয়ে আটটি বিস্ফোরণ ঘটে। ধর্মীয় উৎসব ইস্টার সানডে উপলক্ষে খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীরা গির্জায় থাকাবস্থায় বিস্ফোরণগুলো ঘটে।

শ্রীলংকার পশ্চিম প্রদেশের নেগম্বো, পূর্বপ্রদেশের বাট্টিকালো এবং রাজধানী কলম্বোর গির্জাগুলোতে বোমা হামলা চালানো হয়। এ ছাড়া কলম্বোর তিনটি পাঁচ তারকা হোটেল সাংরি-লা, কিংসবুরি, সিনামন গ্র্যান্ডসহ আরেকটি আবাসিক হোটেলে হামলা হয়।

হামলায় সবশেষ ২৫৩ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন প্রায় ৫শ মানুষ। হতাহতদের মাঝে বেশ কয়েকজন বিদেশি নাগরিকও আছেন। হামলায় জড়িত সন্দেহে এখন পর্যন্ত সরকার ৭৬ জনকে আটক করেছে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ