লালনেই দুর্বলতা অঙ্কনের

সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডলে তাঁর সঙ্গীত চর্চা ছোট বেলা থেকেই। লালন সঙ্গীতেই তাঁর পদচারণা। ফরিদা পারভীনকে ভাবেন নিজের আইডল হিসেবে। প্রথম যে গানটি কণ্ঠে তোলেন সেটি ছিলো- ‘খাঁচার ভেতর অচিন পাখি কেমনে আসে যায়’। মোটকথা ফোক গানেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন এই শিল্পী। পরিবারের অক্লান্ত পরিশ্রম ও নিজের কণ্ঠের জাদুতে এরইমধ্যে দেশব্যাপী ছড়িয়েছেন খ্যাতি। বিদেশেও বিভিন্ন কনটেস্টে গান করেছেন। তিনি ফোকশিল্পী অনন্যা ইয়াসমিন অঙ্কন। একুশে টেলিভিশন (ইটিভি) অনলাইনের সঙ্গে একান্ত আলাপচারিতায় অঙ্কন জানালেন গান নিয়ে তার ভাবনার কথা, ভালো লাগার কথা আর ক্যারিয়ারের কথা। তাঁকে নিয়ে প্রতিবেদন তৈরি করেছেন- সোহাগ আশরাফ ছোটবেলা থেকেই গানের…

Read More

সা ত কা হ ন: অনন্যা ইয়াসমিন অঙ্কন

ফারুক আহমেদ চৌধুরী:  অনন্যা ইয়াসমিন অঙ্কনের সংগীত প্রতিভায় মুগ্ধ চাঁপাইনবাবগঞ্জবাসী। সংগীতে তার শিক্ষাগুরু বাবা। তার হাত ধরেই তিনি গানের জগতে প্রবেশ করেন। বাবার অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলে দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে তার খ্যাতি। বাবার প্রতিষ্ঠিত মহানন্দা সংগীত নিকেতনে শিক্ষাজীবন শুরু করেন অনন্যা। ছোটবেলা থেকেই গানের প্রতি ঝোঁক ছিল তার। বিশেষ করে লোকসংগীতের প্রতি তার গভীর অনুরাগ আজও রয়েছে। এই ধারাবাহিকতায় চ্যানেল আই বাংলার গান ২০১৫ প্রতিযোগিতায় প্রতিভার স্বাক্ষর রাখেন তিনি। এই প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় রানার আপ নির্বাচিত হন। সেই শুরু। বাবা-মা ও চাঁপানবাবগঞ্জবাসীর অনুপ্রেরণায় শিল্পী হয়ে ওঠেন তিনি। অঙ্কনকে অনেকে এখন উত্তরবঙ্গের গর্ব…

Read More