মসজিদে হামলার ভিডিওসহ হামলাকারীর অ্যাকাউন্ট সরিয়ে ফেলেছে ফেসবুক

0

নিউজিল্যান্ডের দুটি মসজিদের হামলার ঘটনা ফেসবুকে লাইভ স্ট্রিম করেছিল হামলাকারী ব্রেনটন ট্যার‌্যান্ট। লাইভ স্ট্রিম শুরু হওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই দেশটির পুলিশ বিষয়টি জানালে হামলার ভিডিও এবং হামলাকারীর অ্যাকাউন্টটি সরিয়ে ফেলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটি।

শুক্রবার প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে এই তথ্য নিশ্চিত করে যুক্তরাজ্যভিত্তিক গণমাধ্যম ডেইলি স্টার।

অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে ফেসবুকের প্রধান মিয়া গ্যারলিক এক বিবৃতিতে বলেন, ফেসবুকে লাইভ স্ট্রিম শুরু হওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যে নিউজিল্যান্ডের পুলিশ আমাদেরকে বিষয়টি জানায় এবং আমরা ভিডিওটি ও হামলাকারীর ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি সরিয়ে ফেলেছি।

তিনি আরও বলেন, আমরা এই হামলা, হামলাকারী বা হামলাকারীদের কোনও ধরনের প্রশংসা বা সমর্থন করে দেয়া দেয়া পোস্টও সরিয়ে ফেলছি।

এছাড়া হামলার আগে ২৮ বছর বয়সী অস্ট্রেলিয়ান বংশোদ্ভূত ট্যার‌্যান্ট টুইটারে একটি ঘোষণাপত্র পোস্ট করে বলে মনে করা হচ্ছে। এতে হামলার কারণ হিসেবে তার অভিবাসী বিরোধী মনোভাবের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। তিনি নিহতদেরকে তার দেশে অনুপ্রবেশকারী হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

স্থানীয় সময় শুক্রবার দুপুর একটা ৪০ মিনিটের দিকে নিউজিল্যান্ডের সাউথ আইল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ শহরের মসজিদ আল নূর এবং লিনউড মসজিদে হামলার ঘটনায় ৪৯ জন নিহত এবং ৪৮ জনের বেশি মানুষ আহত হন।

এই ঘটনায় ২৮ বছর বয়সী এক তরুণকে হত্যার অভিযোগে পুলিশের হেফাজতে নেয়া হয়েছে এবং শনিবার তাকে ক্রাইস্টচার্চ ডিস্ট্রিক্ট কোর্টে হাজির করা হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশ কমিশনার মাইক বুশ। এছাড়া দুজন পুলিশের হেফাজতে আছেন বলেও জানান তিনি।

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন এটিকে ‘সন্ত্রাসী’হামলা উল্লেখ করে বলেন, হামলাটি পরিকল্পিত। হামলাকারীরা চরমপন্থি মতাদর্শে বিশ্বাসী। নিউজিল্যান্ডে কেন পৃথিবীর কোথাও তাদের জায়গা হওয়া উচিত নয়। সার্বিক পরিস্থিতি তদন্তে যৌথ তদন্ত দল মোতায়েন করা হয়েছে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ